ভৈরবে ৩ মাস পর কবর থেকে শিশুর লাশ উত্তোলন

ভৈরব প্রতিনিধি: | সোমবার, ডিসেম্বর ১৯, ২০১৬
ভৈরবে ৩ মাস পর কবর থেকে শিশুর লাশ উত্তোলন
কিশোরগঞ্জের ভৈরব শহরের চন্ডিবের এলাকায় ফাহিম নামে ৫ম শ্রেনির শিশু শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। ফলে আদালতের নির্দেশে আজ সোমবার সকালে অন্তত ৩ মাস পর কবর থেকে নিহত শিশুর লাশ উত্তোলন করা হয়েছে। এ সময় নির্বাহী ম্যজিষ্ট্রেটের দায়িত্ব পালন করেন উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) চিত্রা শিকারী। এ ঘটনায় এলাকার উৎসুক জনতা কবর স্থানে ভিড় জমায়।
নিহতের পরিবারের অভিযোগ, জায়গা-সম্পত্তি নিয়ে ফাহিমের বাবার সায়েম মিয়ার সাথে তার মা ও ভাই-বোনের বিরুধ চলে আসছে। এরই জের ধরে ফাহিমকে চলতি বছরের ৫ মে তার দাদু, কাকা ও চাচিসহ বেশ কয়েক জন মিলে বেদরক পিটিয়ে আহত করে। পরে তার অবস্থা বেগতিক দেখে ফাহিমের মা-বাবা তাকে ঢাকা বঙ্গবন্ধু শিশু হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে তার দেহে মরণ ব্যাধি ক্যান্সার ধরা পরে। প্রায় চার মাস চিকিৎসাধীন অবস্থায় গেল ২২ সেপ্টেম্বর হাসপাতালে সে মারা যায়। পরে ফাহিমের মা আসমা বেগম বাদী হয়ে তার শাশুড়ী নাজিরা খাতুনকে প্রধান আসামী করে দেবর ও ঝাঁ সহ ৫জনের বিরুদ্ধে থানায় ২৬ নভেম্বর হত্যা মামলা দায়ের করেন।
এদিকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ অস্বীকার করেন নিহত ফাহিমের দাদু ও কাকাসহ তার স্বজনরা। তাদের দাবী সম্পত্তির লোভে আমাদেও বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।
এ বিষয়ে ভৈরব থানার ওসি তদন্ত মো. আবু তাহের জানান, বাদীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে ও আদালতের নির্দেশে শিশুর লাশ উত্তোলন করে ময়না তদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।