এমপি লিটন হত্যায় অংশ নেয় পাঁচজন

নিজস্ব প্রতিবেদক | শনিবার, ডিসেম্বর ৩১, ২০১৬


এমপি লিটন হত্যায় অংশ নেয় পাঁচজন
গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনের সরকারদলীয় সংসদ সদস্য মনজুরুল ইসলাম লিটন হত্যায় অংশ নিয়েছে পাঁচজন দুর্বৃত্ত। মোটরসাইকেলে আসা দুর্বৃত্তদের তিনজন বাসায় ঢুকে এমপি লিটনকে গুলি করে। শনিবার মাগরিবের নামাজের পর পৌনে ছয়টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে এ তথ্য জানান সুন্দরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আতিয়ার রহমান। তিনি বলেন, ঘটনার সময় বামনডাঙ্গার সর্বানন্দ ইউনিয়নের শাহবাজ গ্রামের মাস্টারপাড়ার নিজ বাসায় এ সময় এমপি লিটন এবং তার স্ত্রী ছিলেন। দুটি মোটরসাইকেল যোগে পাঁচজন লোক ওই বাড়িতে যায়। এর আগে তারা আশপাশের লোকজনের কাছ থেকে এমপির বাসা চিনে নেয়।

পরিবারের বরাত দিয়ে ওসি জানান, দুর্বৃত্তরা বাসায় ঢুকে খুব কাছ থেকে লিটনকে গুলি করে। সঙ্গে সঙ্গে নিস্তেজ হয়ে মেঝেতে পড়ে যান তিনি। গুলির শব্দ শুনে এমপির স্ত্রী ছুটে গেলে তাকেও গুলি করে দুর্বৃত্তরা। রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে তাকে।

ওসি জানান, ঘটনাস্থলে গুলির খোসা পড়ে রয়েছে। আলামত সংগ্রহে ঘটনাস্থলে পুলিশে বিশেষ টিম রয়েছে। এ ছাড়া পুরো ঘটনাস্থল কর্ডন করে রাখা হয়েছে বলে জানান ওসি।

তবে ওই পাঁচজন কারা সেই বিষয়ে এখনো কোনো ধারণা দিতে পারেনি পুলিশ। পুলিশের ওই কর্মকর্তা জানান, ‘আমরা আশাপাশের এলাকায় আমাজের ফোর্সকে সতর্ক করেছি। বিশেষ সতর্কতা জারি করা হয়েছে পুরো এলাকায়।’

এদিকে সুন্দরগঞ্জের বাসায় গুলিবিদ্ধ এমপি লিটনকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎ​সকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। চিকিৎসকরা জানান, লিটনের বুক ও হাতে ছয়টি গুলি লেগেছে। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে হাসপাতালের আনার পথেই তার মৃত্যু হয় বলে চিকিৎসকরা জানান।

ঘটনার বিষয়ে গাইবান্ধার পুলিশ সুপার মো. আশরাফুল ইসলাম বলেন, সাংসদের স্ত্রী ফোন করে তার গুলিবিদ্ধ হওয়ার বিষয়টি পুলিশকে জানান। এরপর পুলিশের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে ছুটে যান। ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে জানান তিনি।