বরগুনায় গৃহবধুকে ধর্ষন করতে না পেরে বাসায় তালা ঝুলিয়েছে দুর্বৃত্তরা

বরগুনা প্রতিনিধি | মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী ২১, ২০১৭
বরগুনায় গৃহবধুকে ধর্ষন করতে না পেরে বাসায় তালা ঝুলিয়েছে দুর্বৃত্তরা

গৃহবধুকে ধর্ষন করতে না পেরে তার বাসায় তালা ঝুলিয়েছে দুই দুর্বৃত্ত। গৃহবধু এক বছরের বধু শিশু সন্তান নিয়ে বাবার বাড়ীতে আশ্রয় নিয়েছে। একদিন পালিয়ে থেকে গৃহবধু থানায় মামলা না নেওয়ায় গৃহবধু বাদী হয়ে বরগুনা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে একটি মামলা করে।

এ ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার রাত ১১টায় বরগুনা পৌরসভার মাইঠা সড়কে। মামলার আসামীরা হলো একই পৌরসভার মাইঠা গ্রামের মুনসুর আলীর ছেলে মামুন ও আ. লতিফের ছেলে মোহসিন। ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. জুলফিকার আলী খান সোমবার মামলাটি গ্রহন করে বিচার বিভাগীয় তদন্তের আদেশ দিয়েছেন।

গৃহবধু জানান, তার স্বামী পেশায় ট্রাক্টর চালক। আমতলী উপজেলায় ইটভাটায় মাটি টানার কাজ করেন। সপ্তাহে ২/৩ দিন বরগুনা ভাড়াটিয়া বাসায় আসে। অধিকাংশ সময় বাসায় ওই গৃহবধুর একা থাকতে হয়। প্রতিবেশী মামুন  কিছু দিন আগে একটি শাড়ী কাপড় নিয়ে গৃহবধুর বাসায় আসে।

শাড়ীটি দিয়ে গৃহবধুকে কুপ্রস্তাব দেয়। একটু পর ওই বাসায় মোহসিন এসে গৃহবধুকে শাড়ী রাখার জন্য চাপ সৃষ্টি করে এবং মামুন যা বলে তা শুনতে বলে। গৃহবধু তাদের শাড়ী ফেরৎ দিয়ে বাসায় থেকে বেড়িয়ে যেতে বলেন। এতে দুই বন্ধু ক্ষিপ্ত হয়ে প্রতিশোধ পরায়ন হয়ে ওঠে। শনিবার রাত ১০টায় বাসার দরজা বন্ধ করে গৃহবধু ঘুমানোর প্রস্ততি নেয়। রাত ১১টায় একজন মহিলা বাহির থেকে ভাবী বলে ডাক দেয়।

গৃহবধু রাতে দরজা খুলতে না চাইলে জনৈক মহিলা আবার বলে, একজন লোক ট্রাক্টর ভাড়া নিতে আসছে। ভাই বাসায় নেই। তবে আপনি দরজা খুলে টাকা রাখুন। গৃহবধু দরজা খোলার সাথে সাথে ওই দুই যুবক বাসায় ঢুকে ধর্ষনের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে গৃহবধুর স্পর্শকাতর স্থানে কামড় দিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। এমন সময় গৃহবধুর স্বামী লিটন ঢালি স্ত্রীর খোজ নেওয়ার জন্য ফোন দেয়। গৃহবধু ফোন ধরে কৌশল করে উত্তর দেয় পুলিশ ভাই তাড়াতাড়ি আসুন। আমার সর্বনাশ হচ্ছে।

এ সময় দুর্বৃত্তরা দ্রুত পালায়। বরগুনা থানার ওসি এসএম মাসুদুজ্জামান  জানান, এ ব্যাপারে থানায় কেহ মামলা করতে আসেনি। আসামীদের মুঠোফোন বন্ধ থাকায় যোগাযোগ করা যায়নি।