হাজারীবাগ ট্যানারির সংযোগ বিচ্ছিন্ন অভিযান শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক, | শনিবার, এপ্রিল ৮, ২০১৭
হাজারীবাগ ট্যানারির সংযোগ বিচ্ছিন্ন অভিযান শুরু
সাভারের চামড়া শিল্পনগরীতে কারখানা সরিয়ে নিতে বাধ্য করতে রাজধানীর হাজারীবাগের ট্যানারিতে গ্যাস, বিদ্যুৎ, পানি ও টেলিফোন সংযোগ বিচ্ছিন্নের অভিযান শুরু করেছে পরিবেশ অধিদপ্তর। সাভারের চামড়া শিল্পনগরীতে কারখানা সরিয়ে নিতে বারবার সময় দেয়া হলেও মালিকদের অনাগ্রহের পর সংযোগ বিচ্ছিন্নের এই নির্দেশ দিয়েছিল উচ্চ আদালত।

শনিবার সকাল নয়টার দিকে পরিবেশ অধিদপ্তরের মহা্পরিচালক রইসুল ইসলাম মন্ডলের নেতৃত্বে এই অভিযান শুরু হয়। সেখানে পাঁচজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উপস্থিত আছেন। ঢাকা ওয়াসা, গ্যাস বিতরণ কোম্পানি তিতাস এবং বিদ্যুৎ বিতরণ কোম্পানি ডেসকো ও ডেসার কর্মকর্তারা নিজ নিজ সংস্থার সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার কাজ শুরু করেন।

শুরুতে কাটা হয় টেলিফোন সংযোগ। এরপর একে একে বিভিন্ন কারখানার গ্যাস, বিদ্যুৎ ও পানির সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা শুরু হয়। হাজারীবাগ ট্যানারি মোড় থেকে এই অভিযান শুরু হয়। একটি তালিকা ধরে একের পর এক কারখানায় গিয়ে সেবা লাইনগুলো বিচ্ছিন্ন করার কাজ শুরু হয়।

এই অভিযানে গোলযোগের আশঙ্কায় বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে এলাকায়। তবে কারখানার মালিকপক্ষ বা শ্রমিকরা কোনো ধরনের বাধা দিচ্ছে না অভিযানকারী দলকে। এই অভিযানে কোনো ধরনের দুর্ঘটনা হলে তা মোকাবেলায় ফায়ার সার্ভিসের একটি দলকেও এলাকায় মোতায়েন করা হয়।

এই অভিযান চালাতে লেদার টেকনোলজি কলেজের সামনে একটি নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খোলা হয়েছে। পরিবেশ অধিদপ্তরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোসাদ্দেক মেহেদী ইমাম বেলা পৌনে ১১টার দিকে সাংবাদিকদেরকে বলেন, ‘ইতিমধ্যে আমরা টেলিফোন লাইন সব বিচ্ছিন্ন করেছি। এখন গ্যাস, বিদ্যুৎ ও পানির লাইন বিচ্ছিন্ন করা হচ্ছে। আজকে শেষ না হলে আগামীকালও আসবো।’

শনিবার থেকে এই অভিযান চালানো হবে-এই ঘোষণা আগেই ছিল। অভিযান শুরুর দিন কোনো কারখানাতেই কাজ চলতে দেখা যায়নি। যদিও শ্রমিকরা আশেপাশেই ছিল। আবার কারখানার ভেতরে মালামালও দেখা যায়।

হাজারীবাগ থেকে ১৫৪টি ট্যানারিকে সাভারের চামড়াশিল্প নগরে সরিয়ে নিতে ২০০৩ সালে একটি প্রকল্প নেয় সরকার। তবে নানা কারণে ১৩ বছর পেরিয়ে গেলেও ট্যানারি সাভারে নেয়া শেষ করা যায়নি। গত ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে ট্যানারিগুলোকে সাভারে যাওয়ার সময় বেঁধে দিয়েছিলেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু। এরপরও কারখানাগুলো স্থানান্তরে ব্যর্থ হয়।

এরপর গত ৬ মার্চ হাইকোর্ট হাজারীবাগের সব ট্যানারি কারখানা বন্ধ এবং বিদ্যুৎ-গ্যাস-পানির সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার নির্দেশ দেয়। ৬ এপ্রিলের মধ্যে এই অভিযান শেষ করে ১০ এপ্রিল আদালতে প্রতিবেদক দেয়ার নির্দেশও দেয়া হয়। ৪ এপ্রিল এই অভিযান চালানোর কথা ছিল পরিবেশ অধিদপ্তরের। কিন্তু বিশ্বের পার্লামেন্ট সদস্যদের সংস্থা আইপিইউ এর সম্মেলনের কারণে এই অভিযান চালানো হয়নি সেদিন।

সাভারে চামড়া শিল্প নগরী প্রস্তুত বলে সরকার দাবি করলেও ট্যানারি মালিকদের দাবি, এটির রক্ষণাবেক্ষণকারী বিসিক মিথ্যাচার করছে। সেখানে ইটিপি ঠিক হয়নি, গ্যাস সংযোগ সব স্থানে লাগেনি, জমির নিবন্ধন হয়নি।