কমলগঞ্জে যৌতুকের টাকা না পেয়ে গরম পানি ঢেলে স্ত্রীকে নির্যাতন আটক- ২

মশাহিদ আহমদ, মৌলভীবাজার | শনিবার, এপ্রিল ৮, ২০১৭
কমলগঞ্জে যৌতুকের টাকা না পেয়ে গরম পানি ঢেলে স্ত্রীকে নির্যাতন আটক- ২

 কমলগঞ্জে যৌতুকের ১ লাখ টাকা না দেওয়ায় দুই মাসের অন্তস্বত্তা হাসনা আক্তার (২০) নামের এক গৃহবধুর শরীরে ফুটন্ত গরম পানি ঢেলে  জ্বলসে দিয়েছে শ্বশড় বাড়ির লোকজন। এ ঘটনায় নির্যাতিতা মেয়ের পিতা উপজেলার মাধবপুর ইউনিয়নের নোয়াগাঁও গ্রামের হারুন মিয়া বাদী হয়ে ৬ জনের নামে কমলগঞ্জ থানায় যৌতুক ও নারী নির্যাতনের একটি মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ এ ঘটনায় স্বামীর বড় ভাই কামাল আহমেদ (৪০) ও বড় বোন মজিরুন বিবি (৩৪)কে আটক করছে। স্বামী কামরুল মিয়া পলাতক রয়েছে।

এ রিাের্পট লেখা পর্যন্ত নির্যাতিত গৃহবধূ হাসনা আক্তার কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রযেছেন । ঘটনাটি ঘটেছে গত ৬ এপ্রিল বৃহষ্পতিবার সন্ধ্যায় কমলগঞ্জ উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের শ্রীপুর কোনাগাঁও গ্রামে। নির্যাতিত গৃহবধুর পিতা একই হারুন মিয়া জানান- গত ৬ মাস পুর্বে ইসলামপুর ইউনিয়নের দিলাল মিয়ার ৩য় পুত্র  কামরুল মিয়ার সাথে তার ১ম কন্যা হাসনার আক্তারের সাথে বিবাহ হয়। বিয়ের সময় মেয়ের শ্বশুড় বাড়ির লোকজনকে নগদ ৩০ হাজার টাকা দেযা হয়। বিয়ের এক মাস পর মেয়ের উপর যৌতুকের জন্য নির্যাতন শুরু করেন স্বামী কামরুল সহ বাড়ির লোকজন। এক পর্যায়ে বিদেশ যাওয়ার জন্য ১ লাখ টাকা দাবী করলে তিনি টাকা দিতে না পারায় প্রতিনিয়ত মেয়ের উপর শরীরিক নির্যাতন চালানো হত। ঘটনার এক সপ্তাহ আগে ১০ হাজার টাকার আসবাবপত্র তার স্বামীর বাড়ীতে দেয়া হয়।  গত কয়েকদিন ধরে মেয়ে হাসনা আক্তারের উপর প্রচন্ড নির্যাতন চালালে আমি খবর পেয়ে স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য সবুজ মিয়া কে বিষয়টি অবগত করি। বিচার দেয়ার কারনে গত ৬ এপ্রিল বৃহস্পতিবার সকালে থেকে মেয়ের উপর শ্বশুর বাড়ির লোকজনরা অমানসিক নির্যাতন করলে পাশ্ববর্তী একটি বাড়িতে পালিয়ে গিয়ে আমার কাছে মোবাইলে কল দিয়ে তাকে বাচাঁনোর আকুতি জানায়। কথা বলা অবস্তায় শ্বশুড়বাড়ির লোকজন ওই বাড়ি থেকে ফিরিয়ে নিয়ে গর্ভবতী মেয়েটির উপর ফুটন্ত গরম পানি ঢেলে সারা শরীর জ্বলসে দেয়। আমি বাড়িতে গিয়ে দেখি মেয়েটি  অজ্ঞান অবস্থায় পড়ে আছে। চিকিৎসার জন্য মেয়েটিকে নিয়ে আসতে চাইলে শ্বশুর বাড়ির লোকজন বাধা প্রদান করে।