নাটোরে প্রেমিকের বাড়িতে বিয়ের দাবীতে প্রেমিকার অনশন, দশ দিনের আল্টিমেটাম

তাপস কুমার, নাটোর: | শনিবার, এপ্রিল ২৯, ২০১৭
নাটোরে প্রেমিকের বাড়িতে বিয়ের দাবীতে প্রেমিকার অনশন, দশ দিনের আল্টিমেটাম

নাটোরের নলডাঙ্গা উপজেলায় বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশনের পর দশ দিনের মধ্যে বিয়ে করার অঙ্গীকারনামা করে প্রেমিকা লাকি খাতুন কে বাড়ি নিয়ে গেছে তার পরিবার।
শুক্রবার সন্ধ্যায় উপজেলার শেখপাড়া গ্রামে প্রেমিক আখরুজ্জামান রেন্টুর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। আখরুজ্জামান রেন্টু শেখ পাড়া গ্রামের সমজান আলীর ছেলে ও প্রেমিকা লাকী খাতুন(২৪) রাজশাহী জেলার বাগমারার তাহেরপুর বাজার পাড়ার ফজলু সরদারের মেয়ে। আখরুজ্জামান রেন্টু হেলথ স্বাস্থ্য সহকারী হিসেবে রামশাকাজিপুর এলাকায় কর্মরত ও লাকী খাতুন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেতে রাষ্ট বিজ্ঞান বিষয়ে মার্স্টাস পাশ করেছে।  
এলাকাবাসী ও থানা সূত্রে জানা যায়, দেড় বছর আগে আখরুজ্জামান রেন্টু কে বিয়ে দেয়ার জন্য তার পরিবার লাকি খাতুন কে দেখতে গিয়ে দুজনার মধ্যে পরিচয় ঘটে। পারিবারিকভাবে তাদের তখন বিয়ে না হলেও দুজনার মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। প্রেমিকা লাকী খাতুনের ভাষ্য তাকে নাটোর বিসমিল্লাহ হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে প্রেমিক আখরুজ্জামান রেন্টু চেতনানাশক ট্যাবলেট খাইয়ে অনৈতিক মেলামেশা করে। পরে বিয়ের জন্য চাপ দিলে প্রেমিক রেন্টু তালবাহানা শুরু করে। এনিয়ে তাদের দুজনার মধ্যে ঝগড়াও হয়। প্রেমিক আখরুজ্জামান রেন্টু অন্য আরেকটি মেয়ের সাথে সম্পর্ক তৈরি করে বিয়ে করার জন্য চেষ্টা চলছে-এখবর জানতে পেরে গত শুক্রবার (২৮ এপ্রিল) প্রেমিকা লাকী খাতুন তার বাড়িতে বিয়ের দাবীতে অনশন শুরু করে। এসময় প্রেমিক আখরুজ্জামান রেন্টু পালিয়ে যায়। বিয়ে না করলে প্রেমিকা লাকী আত্যহত্যা করার  হুমকি দেয়। এনিয়ে শুক্রবার সন্ধ্যায় দুই পরিবারের অভিভাবক স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান বাবু, কয়েকজন ইউপি সদস্য ও এলাকার লোকজন  নিয়ে সালিশি বৈঠকে বসে। সালিশি বৈঠকে উভয় পক্ষের সম্মতিতে দশ দিনের মধ্যে বিয়ে করতে বাধ্য থাকিবে মর্মে লিখিত সমাঝোতা হয়।
এব্যাপারে ব্রক্ষপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান বাবু জানান, এ ঘটনা জানার পর দুই পক্ষের লোকজন নিয়ে আমি ও নলডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোস্তাফা কামাল স্থানীয়দের উপস্থিতিতে আগামী দশ দিনের মধ্যে তাদের বিয়ে সম্পন্ন করতে হবে বলে সমঝোতা হয়। নলডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোস্তফা কামাল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, আগামী দশ দিনের মধ্যে আখরুজ্জামান রেন্টু মেয়েটিকে যদি বিয়ে না করে তাহলে এ বিষয়ে অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করবো।