গলাচিপায় জয়ফুল বেগমের ঘর আছে ছাউনি নেই!

সৌরভ রক্ষিত, স্টার রিপোর্টার। | বুধবার, জুন ৭, ২০১৭
গলাচিপায় জয়ফুল বেগমের ঘর আছে ছাউনি নেই!
  পটুয়াখালীর গলাচিপা পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডে জয়ফুল বেগম পরিবার নিয়ে এক দুরঅবস্তার মধ্যে জিবন-যাপন করছে। জয়ফুল বেগম হচ্ছেন ২৫০ নম্বর বাসার অসহায় ও অসুস্থ ইসমাইল হাওলাদারের স্ত্রী।
সরজমিনে গিয়ে জানা যায়, ইসমাইল হাওলাদার দীর্ঘ ৪০ বছর ধরে মানুষের দারে দারে দিন মজুরের কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করতেন। স্ত্রী জয়ফুল বেগম ও তিন কন্যা সন্তান নিয়ে অতিকষ্টে পানি উন্নয়ন বোর্ডের (ওয়াপদা)রাস্তার পাশে এক খন্ড জমিতে জির্ন্ন ঘর তুলে সংসার চালায়। একে একে তার দুই কন্যা সন্তান মারা যায় এবং মানসিক ও শারিরিক ভাবে অচল হয়ে পড়েন তিনি। বাধ্য হয়ে সংসারের হাল ধরতে হয় জয়ফুল বেগমের তাই হতে তুলে নিতে হয় হাতুড়ি যা দিয়ে ইট ভেঙ্গে খোয়া তৈরি করে রোজগার করতে হয়। আর তা দিয়ে অসুস্থ স্বামীর চিকিৎসা ও সংসারের চলে। বন্যা বৃষ্টির কারনে বসবাসের স্থানটি বাশ, কাঠ ও টিনের ছাউনি ভেঙ্গে চুড়ে একাকার। বসবাস উপযোগী ঘর নির্মান করার সামার্থ নেই ঐ পরিবারের।
এ ব্যাপারে জয়ফুল বেগম প্রতিবেদককে জানান, মুক্তিযুদ্ধের পর থেকেই এই স্থানে আমি ও আমার পরিবার নিয়ে বসবাস করছি। পৌরসভার হোল্ডিং নম্বর ২৫০, ২৪৭ এর নিয়মিত ভাবে পৌরকর দিয়ে আসছি। পানি উন্নয়ন বোর্ডের খাস জমিতে ৪০ বছরের বেশি বসবাস করি। এখন আমার ঘর উঠানো খুব প্রয়োজন কিন্তু ঘর তুলতে গলে এলাকার কিছু লোক এসে বাধা দেয় তাই ঘর তুলতে পারি না। অসুস্থ ও অসহায় স্বামীকে নিয়ে বর্ষা-বৃষ্টির পানিতে ভিজে দিন কাটাচ্ছি।