না.গঞ্জে স্কুলছাত্রীর বাল্যবিয়ে বন্ধ করলেন ইউএনও

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি, | বুধবার, নভেম্বর ১৫, ২০১৭
না.গঞ্জে স্কুলছাত্রীর বাল্যবিয়ে বন্ধ করলেন ইউএনও
নারায়ণগঞ্জ জেলার ফতুল্লার এনায়েতনগর ইউনিয়নের মধ্য ধর্মগঞ্জ এলাকায় নবম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীর বাল্যবিয়ে বন্ধ করেছেন সদর উপজেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তাসনিম জেবিন বিনতে শেখ।

বুধবার দুপুরে এলাকাবাসীর খবরের ভিত্তিতে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মেয়ের বাড়িতে গিয়ে ওই বাল্যবিবাহ বন্ধ করেন।

কিশোরী মুন্নী আক্তার (১৪) উপজেলার এনায়তনগর ইউনিয়নের মধ্য ধর্মগঞ্জ এলাকার আব্দুর রশিদের মেয়ে। সে ফতুল্লা হরিহর পাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, এনায়েতনগর ইউনিয়নের মধ্য ধর্মগঞ্জ এলাকার আব্দুর রশিদের মেয়ে মুন্নী আক্তারের সঙ্গে একই এলাকার মনির হোসেনের ছেলে সিঙ্গাপুর প্রবাসী রুবেলের বিয়ে ঠিক হয়। বুধবার গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান চলছিল।

এসময় বাল্যবিয়ের খবর পেয়ে প্রথমে স্কুলের প্রধান শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটির সদস্যরা বিয়ে বন্ধ করার অনুরোধ করেন। পরে সদর ইউএনও তাসনিম জেবিন বিনতে শেখ উপস্থিত হয়ে উভয় পরিবারের সদস্যদের বুঝিয়ে বিয়ে বন্ধ করেন।

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তাসনিম জেবিন বিনতে শেখ ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘মেয়েটির ১৮ বছর পূর্ণ হয়নি। এছাড়াও মেয়েটি শারীরিক ও মানসিকভাবেও এখনও বিয়ের উপযুক্ত হয়নি। এসব বিষয়ে চিন্তা করে উভয় পরিবারের সম্মতিক্রমে বিয়ে বন্ধ করা হয়েছে। ১৮ বছর পূর্ণ হওয়ার পরই বিয়ে অনুষ্ঠিত হবে এই মর্মে উভয় পরিবার লিখিত অঙ্গিকারও দিয়েছে।’