ধর্মপাশায় নিখোঁজ আব্দুল কুদ্দুছ ২১দিন পর বারহাট্টা থেকে উদ্ধার

ধর্মপাশা (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি | মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ১৯, ২০১৭
ধর্মপাশায় নিখোঁজ আব্দুল কুদ্দুছ ২১দিন পর বারহাট্টা থেকে উদ্ধার
সুনামগঞ্জের ধর্মপাশায় পল্লী চিকিৎসক আব্দুল কুদ্দুছ (৪৩) নিখোঁজ হওয়ার ২১ দিন পর আজ মঙ্গলবার সকালে পাশের নেত্রকোনার বারহাট্টা উপজেলা পরিষদের ভবনের বারান্দায় শুয়ে থাকা অবস্থায় তাকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।
নিখোঁজ আব্দুল কুদ্দুছ উপজেলা সদর ইউনিয়নের মহদীপুর গ্রামের মৃত আব্দুল গণির ছেলে। তিনি দীর্ঘদিন ধরে মহদীপুর বাজারে তার একটি নিজস্ব ফার্মেসি ব্যবসার পাশাপাশি এলাকায় পল্লী চিকিৎসকের দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন।
গত ২৮ নভেম্বর রাতে নিজ বাড়ি থেকে নিখোঁজ হন পল্লী চিকিৎসক আব্দুল কুদ্দুছ। পরে পরদিন সকালে  বাড়ির পাশের মহদীপুর এবতেদায়ী মাদ্রাসার সামনের মাঠে তার মোবাইল ফোনটিসহ পড়নে থাকা লুঙ্গী ও গেঞ্জিটি পরে থাকতে দেখে তার পরিবারের লোকজনের মনে সন্দেহ দেখা দেয়।
পরে এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে একই গ্রামের প্রতিপক্ষের আলতু মিয়া (৪৮) ও গিয়াস উদ্দিনসহ (৫০) আটজনকে আসামি করে গত ২৯ নভেম্বর নিঁেখাজ পল্লী চিকিৎসক আব্দুল কুদ্দুছের স্ত্রী শরীফা আক্তার বাদি হয়ে ধর্মপাশা থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পরপরই মহদীপুর গ্রামে অভিযান চালিয়ে মামলার আসামি গিয়াস উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তখন থেকেই তিনি কারা ভোগ করে আসছেন।  
পরে আজ মঙ্গলবার ভোর ৬টার দিকে পাশের নেত্রকোনার বারহাট্টা উপজেলা পরিষদের একটি ভবনের বারান্দায় তিনি শুয়ে রয়েছেন। এমন সংবাদের ভিত্তিতে বারহাট্টা থানা-পুলিশের সহায়তায় ধর্মপাশা থানার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ওসি (তদন্ত) মো.শফিকুজ্জামান ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করে ধর্মপাশা থানায় নিয়ে আসেন।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ওসি (তদন্ত) মো.শফিকুজ্জামান বলেন,  পল্লী চিকিৎসক আব্দুল কুদ্দুছকে মঙ্গলবার বিকেলে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে পাঠানো হয়েছে।