রোহিঙ্গা নির্যাতন জাতিগত নিধন: তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী

উখিয়া প্রতিনিধি | বুধবার, ডিসেম্বর ২০, ২০১৭
রোহিঙ্গা নির্যাতন জাতিগত নিধন: তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী
মিয়ানমারের রোহিঙ্গা নির্যাতনকে ‘জাতিগত নিধন’ বলে অভিহিত করেছেন তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইলদিরিম। তিনি বলেছেন, ‘রোহিঙ্গাদের স্বদেশে ফেরত পাঠানো এবং নিরাপদে বসবাসের জন্য আন্তর্জাতিকভাবে সব মহলের একযোগে কাজ করা জরুরি।’

বুধবার দুপুরে কক্সবাজারের উখিয়ায় বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্প-২ পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে এ কথা বলেন তিনি।

আগস্টের শেষ দিকে রাখাইন রাজ্যে কয়েকটি পুলিশি চেকপোস্টে হামলার জেরে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে দমন-পীড়ন শুরু করে দেশটির সেনাবাহিনী। প্রাণ বাঁচাতে ২৫ আগস্ট থেকে বাংলাদেশের দিকে ছুটে আসে রোহিঙ্গারা। আর মানবিক কারণে সীমান্ত খুলে দেয় বাংলাদেশ। এরপর দুই মাসে ছয় থেকে সাত লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। সব মিলিয়ে এখন বাংলাদেশে ১০ লাখের বেশি রোহিঙ্গা বসবাস করছে বলে সরকারের তথ্য বলছে।

রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়ায় বাংলাদেশের প্রশংসা করে তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বলেন, মিয়ানমারের অসহায় মানুষকে আশ্রয় দিয়ে মানবিকতায় বাংলাদেশ বিশ্বে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।

এর আগে বেলা ১১টার দিকে ঢাকা থেকে ব্যক্তিগত বিমানে কক্সবাজার পৌঁছান ইলদিরিম। এরপর সড়কপথে যান উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে। সেখানে গিয়ে তিনি রোহিঙ্গাদের পরিস্থিতি দেখেন এবং ক্যাম্পে আশ্রিত নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের সঙ্গে কথা বলেন।

এছাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে গিয়ে তিনি মেডিকেল ক্যাম্পের উদ্বোধন করেন এবং দুটি অ্যাম্বুলেন্স হস্তান্তর করেন।  পরে কুতুপালং ক্যাম্পে গিয়ে রোহিঙ্গাদের মধ্যে খাবার বিতরণ করেন।

এ সময় তুরস্কের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী, পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক, চট্টগ্রামের ডিআইজি মনিরুজ্জামান, কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. আলী হোসেন, পুলিশ সুপার ড. একেএম ইকবাল হোসেন, কক্সবাজারের এমপি সাইমুম সরোয়ার কমল, উখিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. নিকারুজ্জামান চৌধুরী, উখিয়া থানার ওসি মো. আবুল খায়ের, পুলিশ বিশেষ শাখার মিজানুর রহমানসহ প্রশাসনের বিভিন্ন কর্মকর্তা ও এনজিও সংশ্লিষ্টরা।