পাল্টে গেছে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের দৃশ্যপট

আজিজুর রহমান,বিশেষ প্রতিনিধি: | সোমবার, ডিসেম্বর ২৫, ২০১৭
পাল্টে গেছে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের দৃশ্যপট
 বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল এ দেশের প্রতিটি মানুষ তাদের মৌলিক অধিকার নিয়ে বেচে থাকবে। কিন্তু পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নকে ধ্বংশ করার লক্ষে জাতীর জনকসহ পুরো পরিবারকে হত্যা করে। তৎকালিন সময়ে দেশের বাহিরে থাকার দরুন বর্তমান সরকারের মাননীয়  প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ম শেখ হাসিনা বেচে যান। পরে তিনি বাংলার জনগনের ভোটে জনসাধারনের মধ্যমনি হয়ে বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন।নিবাচিত হয়ে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, বাংলাদেশের মানুষের মৌলিক অধিকার পুরন করে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়বেন। আর এদেশ উন্নত দেশ হিসাবে বিশ্বের দরবারে মাথা উচু করে দাড়াবে।শেখ হাসিনার  ঐকান্তিক প্রচেষ্ঠায় প্রতিটি অঙ্গনে উন্নয়নের ছোয়া লেগেছে,যা আজ বিশ্ব স্বীকৃত। তেমনি উন্নয়নের একটি বিরাট অংশ দেশের স্বাস্থ্যখ্যাত।বর্তমান এদেশের স্বাস্থ্যসেবার সাফল্য অনেক দেশের জন্য উদাহরণ। সরকার জনগণের জন্য মানসম্মত চিকিৎসা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে কাজ করছে। এজন্য প্রয়োজন দেশের হাসপাতালগুলোর চিকিৎসা সেবার মান উন্নয়ন। সে দিক থেকে স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করণে কাজ করে যাচ্ছে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কতৃপক্ষ। বর্তমানে পাল্টে গেছে  হাসপাতালের সেবার মান ও দৃশ্যপট। আগের মত যত্রতত্র পার্কিং,যেখানে সেখানে ময়লা আবর্জনা দেখতে পাওয়া যায় না। পুলিশের পাশাপাশি হাসপাতালের শৃৎখলা বজায় রাখতে সবর্দা আনসার বাহিনী কাজ করে যাচ্ছে।
সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, বর্তমান সময়ের আগে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ডাক্তার,নার্সগুলো রোগীদের সাথে অশোভন আচরন করত। অনেক রোগী আবার দালালের খপ্পরে পরে সর্বশান্ত হত।
 রোগীদের সাথে আলাপকালে জানান যায়,ইনডোরে ভর্তি রোগীদের সব সময় ডাক্তার,নার্স পাওয়া যায়। রোগীদের প্রয়োজনে যে কোন সময় তারা প্রয়োনীয় সেবাগুলো পেয়ে থাকেন।
হাসপতালের ৪ নাম্বার ওর্য়াডের ভর্তি মুক্তিযোদ্ধা ফয়জুর রহমান জানান, আমি কয়েক বছর আগে একবার ওসমানীতে ভর্তি ছিলাম। কিন্তু আগের তুলনায় বর্তমানে হাসপাতালের সেবার মান অনেক উন্নত। আগে রোগীরা ডাক্তারের দারস্থ হত আর এখন ডাক্তাররা রোগীদের কাছে এসে চিকিৎসা সেবা দিয়ে থাকেন।