মুন্সিগঞ্জের লৌহজংয়ের প্রিয় ও আলোকিত মুখ বীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যাডভোকেট ঢালী মোয়াজ্জেম হোসেন

ফয়সাল হাওলাদার মুন্সিগঞ্জ | রবিবার, ডিসেম্বর ৩১, ২০১৭
মুন্সিগঞ্জের লৌহজংয়ের প্রিয় ও আলোকিত মুখ বীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যাডভোকেট ঢালী মোয়াজ্জেম হোসেন
 শেখ হাসিনা নেতা তার, বঙ্গবন্ধুর তিনি সৈনিক বঙ্গবন্ধুকে ভক্তিকরেন শ্রোদ্ধার সাথে দৈনিক । বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশকে এভাবেই তিনি দীর্ঘ - অর্ধশতেরও বেশি সময় ধরে লালনের মধ্য দিয়ে এগিয়ে চলছেন নিরন্তর । জাতীর শ্রেষ্ঠ সন্তান. রাজনীতিক, সমাজ সেবক, আম জনতার প্রিয় বান্ধব,  মুক্তিযুদ্ধের রনাঙ্গনের  লড়াকু সৈনিক, জীবন্ত কিংবদন্তি বীরমুক্তিযোদ্ধা এ্যাডভোকেট ঢালী মোয়াজ্জেম হোসেন । দেশের জন্য করেছেন যুদ্ধ, আর দশের জন্য করেন জনসেবা ।মানবসেবাই  সবচেয়ে বড়সেবা বলে তিনি মনে করেন । মানবসেবার মাঝে  তিনি খুজে ফেরেন পরপারের অনন্ত ও শেষ আশ্রয়স্থল। সেই ১৯৭১ সালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ডাকে তিনি  মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয় ভাবে অংশ গ্রহন করেন, সেই থেকে  অদ্য  পর্যন্ত দেশ - মাটি ও মানুষের কল্যানে নিবেদিত থেকেছেন এই সাদা মনের মানুষটি। মানব সেবায় অন্তহীন ক্লান্তিহীন ভাবে হেটে চলেছেন তিনি ,  সেই পথ চলায় নেই তার কোন ভয় বা ডর,  শত বাধা বিপত্তি পেরিয়ে বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এর রাজনীতির সাথে যুক্ত  থেকে গরীব ও মেহনতী  মানুষের সাথে সামাজিক উন্নায়নের জন্য তিনি  মানুষের পাশে থেকেছেন সব সময় ।তিনি বলেন বঙ্গবন্ধুর আওয়ামী লীগ যখন বিপদ গ্রস্থ তখনও তিনি হাজারও মামলা হামলাকে উপেক্ষা করে আওয়ামী লীগ রাজনীতি দলের সামনের কাতারে থেকে নেতৃত দিয়েছেন কখনও পিছপা হননি, সে সময় - আওয়ামী লীগ করার মত কোন মানুষ ছিল না প্রানের ভয়ে অনেক নেতাকর্মী দল ত্যাগ করেন, তিনি বলেন আজ যারা মাঠে মঞ্চে বড় বড় বক্তৃতা দেন তারা সেই দিন কোথায় ছিলো জাতির নিকট তিনি জানতে চান। বঙ্গবন্ধুর কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতধরে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে ভিশন ২০৪১এর দিকে , তার এই অব্যাহত চলা কর্মের জন্য এবং সততার দিক দিয়ে ১৫৩টি দেশের মধ্য তৃতীয় ও সৎ প্রধানমন্রী উপাধীতে ভূষিত হয় । তাই দেশবাসীর প্রতি একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে ঢালী মোয়াজ্জেম হোসেন এর উদ্যাক্ত আহবান . জন নেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে দেশ বাসীর প্রতি বঙ্গবন্ধুর নৌকা   মার্কায় ভোটদিয়ে জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার আতœ নিয়োগ করি । লৌহজংয়ের খিদিরপাড়া গ্রামের বীরমুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোঃ দিদার হোসেন এই প্রতিবেদককে বলেন , আমরা মুক্তিযোদ্ধা করেছি জাতীর পিতার ডাকে , আর যুদ্ধ করেছি আমাদের নেতা বীর বীর মুক্তিযোদ্ধা ঢালী মোয়াজ্জেম হোসেন এর নেতৃত্বে । তখন তিনি আমাদের যুদ্ধ কালীন কমান্ডার ছিলেন । তিনি আমাদের নিয়ে বহুবার বহু সম্মুখ যুদ্ধে সামনের কাতারে ছিলেন । তিনি একাধারে শিক্ষা . সাহিত্য, সংস্কৃতির সাথে যুক্ত থেকেছেন  , পাশাপাশি আইন পেশায় গরীবও অসহায় মানুষদের বিনামূল্য আইনি সহযোগিতা করছেন । তাই জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর কন্যা , জাতীর পিতার ছায়া , মাননীয় প্রধানমন্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নিকট মুন্সিগঞ্জের  টঙ্গিবাড়ীও লৌহজং উপজেলার মুক্তিযোদ্ধাও মেহনতী মানুষদের প্রানের দাবী , আগামী সংসদ নির্বাচনে বীরমুক্তিযোদ্ধা  এডভোকেট  ঢালী মোয়াজ্জেম হোসেন সাহেব কে এই আসন থেকে প্রার্থী হওয়ার সুজুগ করে দিলে ইনশাআল্লাহ্ তিনি এই আসন থেকে জয়লাভ করবেন , কারন তিনি একজন গুনী মানুষ ও, বহুমূখী গুনের অধীকারী , এবং গনমানুষের নেতা । অতঃপর তিনি পাবেন তার যোগ্যতমস্থান ,আর আমরা মুক্তিযোদ্ধা ও মেহনতী মানুষেরা হবো সম্মানীত  ।