গলাচিপায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের প্রস্তুতি সভা !

সঞ্জিব দাস, গলাচিপা, পটুয়াখালী: | বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারী ১৫, ২০১৮
গলাচিপায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের প্রস্তুতি সভা !

গলাচিপায় যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২০১৮ উদযাপনকল্পে উপজেলা প্রশাসনের প্রস্তুতি সভা ১৫ ফেব্রুয়ারী বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা প্রশাসন হলরুমে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ তৌছিফ আহমেদ  এর সভাপতিত্বে ও সভার শুরুতে গত বছরের কর্মসূচি ও সিদ্ধান্তসমূহ উপস্থাপন করেন।

পরে গলাচিপা বিগত বছরের ধারাবাহিকতায় এবারো দিবসটি উপলক্ষ্যে ব্যাপক কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে : ২০ ফেব্রুয়ারী দিবাগত রাত ১২টা ১ মিনিটে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে গলাচিপা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ, ২১ ফেব্রুয়ারি প্রতুষে সকল অফিস, আদালত, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও দোকানে জাতীয় পতাকা অর্ধনর্মিত রাখা, সকল প্রতিষ্ঠানে দিবসটি যথাযথভাবে পালন শেষে ২১ ফেব্রুয়ারি শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

সভায় উন্মুক্ত আলোচনায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক সন্তোষ কুমার দে, সাধারন সম্পাদক গোলাম মোস্তফা টিটো, উপজেলা পরিষদের পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ মতিউর রহমান মাষ্টার, মহলি ভাইস চেয়ারম্যান মোসাঃ নারগিস সুলতানা, থানা ইনচার্জ মোঃ জাহিদ হোসেন, গলাচিপা প্রেস ক্লাবের সভাপতি সুমিত কুমার দত্ত মলয়, গলাচিপা রিপোর্টার্স  ক্লাবের সভাপতি সাজ্জাদ আহমেদ মাসুদ, দৈনিক জাতীয় নবচেতনা , দৈনিক বরিশাল অঞ্চল ও  দৈনিক পটুয়াখালী সাথী পত্রিকার গলাচিপা উপজেলা প্রতিনিধি সঞ্জিব দাস প্রমুখ। এসময় উপজেলার সরকারি-বেসরকারি ও স্বায়ত্ত শাসিত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রধান এবং প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন। উন্মুক্ত আলোচনায় প্রভাত ফেরি অনুষ্ঠানে প্রটোকল অনুযায়ী শৃঙ্খলা বজায় রেখে প্রবেশ পথ ও বাহির পথ দিয়ে গলাচিপা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার বেদিতে শ্রদ্ধা নিবেদনের প্রতি গুরুত্বারোপ করা হয়। সভাপতির বক্তব্যে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ তৌছিফ আহমেদ বলেন, পৃথিবীতে আমরা একমাত্র জাতি যারা ভাষার জন্য জীবন দিয়েছে। ২১ ফেব্রুয়ারী আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসটি এখন সারা বিশ্বে পালন করা হয়ে থাকে। তাই দিসবটি গলাচিপায় যথাযোগ্য মর্যাদায় দিসবটি পালন করতে হবে। প্রত্যেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আলাদা আলাদাভাবে কর্মসূচি পালন করতে হবে এবং সরকারি কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করতে হবে। তিনি বলেন, গত বছরের মতো এবারও গলাচিপা মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস কীভাবে আরো সুন্দর এবং জনসম্পৃক্ততা বাড়ানো যায় এ ব্যাপারে সবার সহযোগিতা কামনা করছি। এসব কর্মসূচি বাস্তবায়নে ব্যবস্থাপনায় থাকবে উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ বিভাগসহ অন্যান্য সরকারি বিভাগ, গলাচিপা পৌরসভা, বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন। উল্লেখিত কর্মসূচিগুলো বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বিভিন্ন উপ-কমিটি গঠন করা হয়।