অপারেশনে ছাগলের বাচ্চা প্রসব

ডেস্ক রিপোর্ট | বৃহস্পতিবার, মার্চ ১, ২০১৮
অপারেশনে ছাগলের বাচ্চা প্রসব
কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলা প্রাণিসম্পদ কার্যালয়ের ভেটেরিনারি হাসপাতালে অপারেশনের মাধ্যমে একটি ছাগলের বাচ্চা হয়েছে। বর্তমানে মা ছাগল ও বাচ্চা উভয় সুস্থ আছে।

চকরিয়া উপজেলায় ছাগলের এটি প্রথম সিজারিয়ান বাচ্চা। গত ২৭ ফেব্রুয়ারি রাত ৮টা ২০ মিনিটে সিজারিয়ান এ বাচ্চাটি হয়। এ সফল অপারেশনটি করান উপজেলা প্রাণিসম্পদ কার্যালয়ের ভেটেরিনারি সার্জন ডা. ফেরদৌসী আকতারের নেতৃত্বে একদল চিকিৎসক।

হাসপাতাল সূত্র জানায়, চকরিয়া উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের মুসলিম নগর গাবতলী বাজার এলাকার ফালেছা বেগম একটি গাভিন ছাগল নিয়ে গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় চকরিয়া উপজেলা প্রাণিসম্পদ কার্যালয়ের ভেটেরিনারি হাসপাতালে আসেন।

এরপর হাসপাতালের ভেটেরিনারি সার্জন ডা. ফেরদৌসী আকতার ছাগলটিকে পর্যবেক্ষণ করে এবং সিজারিয়ান অপারেশনের সিদ্ধান্ত নেন।

ভেটেরিনারি সার্জন ডা. ফেরদৌসী আকতার জানান, ছাগলটির পানিভাঙা শুরু হলেও বাচ্চা প্রসব হচ্ছিল না। এ কারণে ছাগলটির মালিক সেটিকে পশু হাসপাতালে নিয়ে আসেন। ছাগলটি গাভিন হওয়ার তিন মাস আগে গাড়ি দুর্ঘটনার শিকার হয়। এতে ছাগলটির পেলভিক গার্ডলে (শ্রোণিচক্র) ক্ষতি হয়। এর ফলে প্রসূতি অবস্থায় যতটুকু সম্প্রসারণ হওয়ার প্রয়োজন ছিল ততটুকু সম্প্রসারণ হয়নি। এ কারণে ছাগলটির স্বাভাবিক প্রসবের কোনো সম্ভাবনা ছিল না।

ডা. ফেরদৌসী আকতার বলেন, ইন্টার্ন চিকিৎসক সাজিদ হাসান ও ইন্টার্ন ভেটেরিনারি ফিল্ড অ্যাসিস্ট্যান্ট মো. বাবরকে নিয়ে সিদ্ধান্ত নিলাম সিজার করাতে হবে। অপ্রতুল যন্ত্রপাতি ও হাসপাতালের অনুপযুক্ত পরিবেশের পরও সিজার করা হয়েছে। দুই ঘণ্টা ২০ মিনিট চেষ্টার পর সফলতাও পাওয়া গেছে। অনেকেই জানেন না পশুরও সিজারের মাধ্যমে বাচ্চা হয়।

ছাগলটির মালিক ফালেছা বেগম বলেন, ছাগলেরও যে সিজারে বাচ্চা হয় এই প্রথম দেখলাম। এটা কখনো শুনিনি। মা ছাগল ও বাচ্চা এখন পুরোপুরি সুস্থ আছে।