প্রধানমন্ত্রীর জন্য নৌকাসেতুর মডেল তৈরি করেছে জাকির

সাগর হোসেন তামিম, মাদারীপুর | মঙ্গলবার, মার্চ ৬, ২০১৮
প্রধানমন্ত্রীর জন্য নৌকাসেতুর মডেল তৈরি করেছে জাকির
তিন বছর আগে পদ্মাসেতু ও এক বছর আগে লাল-সবুজের পার্কের মডেল তৈরি করে জেলাবাসীর ভালবাসা ও উৎসাহ কুড়িয়েছে স্বশিক্ষিত বেকার যুবক জাকির হোসেন তালুকদার। এই সৌখিন শিল্পী এবার প্রধানমন্ত্রীকে উপহার দেয়ার জন্য গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্য নৌকা দিয়ে এই ডিজিটাল যুগে তৈরি করেছে নৌকাসেতুর মডেল। জাকির এ উপহারটি জাকির জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে দিতে চায়। এ ব্যাপারে  মাদারীপুর প্রশাসন সকল প্রকার সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন।

জাকির হোসেন অনেক কষ্ট করে ২৫ বছর পার করেছে। পরিবারের অভাব ও বাবা না থাকায় পড়াশোনা করতে পারেনি। তারপর নিজ মেধা বিকশিত করার জন্য ধারদেনা করে একাধিকবার অনেক কিছু নির্মাণ করেছে। জেলাবাসীর ভালবাসা আর উৎসাহ ছাড়া কোন প্রকার পৃষ্ঠপোষকতা পায়নি সে। জাকিরের মেধা থাকলেও পরিপূর্ণভাবে তা বিকশিত করতে পারছে না। সে তিন বছর আগে পদ্মাসেতুর নমুনা অনুযায়ী একটি অস্থায়ী ভ্রাম্যমাণ সেতু তৈরি করেছিল। এরপর ধার দেনা করে দেড় লাখ টাকা ব্যয়ে তৈরি করে লাল-সবুজ নামে একটি অস্থায়ী ভ্রাম্যমাণ পার্ক।

চলতি বছর ৬ মাস চেষ্টা একটি নৌকাসেতুর মডেল তৈরি করেছে। নৌকাসেতুর পাশে একটি গ্রাম দেখানো হয়েছে; যেখানে বর্তমান সরকারের অঙ্গীকার হিসেবে প্রত্যেক ঘরে-ঘরে বিদ্যুতের বাতি জ্বলছে। সেতুর পাশেই বিদেশিদের জন্য পর্যটক ভবন এবং সেতুটির উভয় পাশে দেখানো হয়েছে শব্দ দূষণ, বায়ূ দূষণ ছাড়া কলকারখানা। যা দেখার জন্য প্রতিদিন শতশত দর্শক ভিড় করছে জাকিরের বাড়িতে।

জাকির হোসেন মাদারীপুর পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের খাগদী (বাসস্টান্ড) এলাকার সোবাহান তালুকদারের ছেলে।

এই নৌকাসেতুর মডেল দেখতে আসা রতন, আলিফ, ফরিদ, হোসাইন, আরিফ, সোহাগ, রশিদ, সাইফুল, সামচুল, শাকিলা, ভানু বেগমসহ একাধিক দর্শনার্থী বলেন, এই ছেলেটি অনেক মেধা রয়েছে। সে কয়েক বছর আগে একটি পদ্মাসেতু তৈরি করে দেখিয়েছিল। তারপর তৈরি করেছে একটি সুন্দর লাল সবুজের পার্ক। এখন প্রধানমন্ত্রীকে উপহার দেয়ার জন্য তৈরি করেছেন একটি নৌকাসেতুর মডেল। আমরা প্রধানমন্ত্রীকে উপহার দেয়ার জন্য তৈরি করা চিত্রকর্মটি দেখতে অনেক দুর থেকে এসেছি।

সৌখিন শিল্পী জাকির হোসেন বলেন, আমি টাকার অভাবে পড়ালেখা করতে পারিনি। তবে আমি এই দেশকে নতুন নতুন কিছু তৈরি করে দেখাতে চাই। আর এর জন্য প্রয়োজন সরকারের পৃষ্ঠপোষকতা। আমি আমার এই স্বপ্ন পূরণে এর আগেও আমার সৃষ্টিকর্মের মাধ্যমে মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছি। আমাকে সুযোগ দিলে নতুন কিছু করে দেখাতে পারব। আর আমি এই উপহারটি আমার দেশের জনগণের আস্থারস্থল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে দিতে চাই। আমার বিশ্বাস তিনি উপহারটি সাদরে গ্রহণ করবেন।

মাদারীপুর জেলা তথ্য অফিসার মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, জাকির যে নৌকাসেতুর মডেল তৈরি করেছে প্রধানমন্ত্রীকে দেয়ার জন্য। আমি অনুরোধ করব- জেলা প্রশাসনকে তার এই উদ্ভাবনীয় ক্ষমতাকে কাজে লাগিয়ে আরও ভালো কিছু করার সুযোগ করে দেয়ার। আমি অনুরোধ করব দেশের প্রকৌশলীদের জাকিরের এই মেধাকে সঠিক কাজে লাগানোর জন্য সহযোগিতা করতে। আশা করি, প্রধানমন্ত্রী জাকিরের এই উপহারটি গ্রহণ করে তাকে আরো ভালো কিছু করার উৎসাহ যোগাবেন।

মাদারীপুর জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুল ইসলাম বলেন, আমরা জানতে পারলাম- জাকির নামে একটি ছেলে নৌকাসেতুর মডেল তৈরি করেছে প্রধানমন্ত্রীকে উপহার দেয়ার জন্য। তবে সে যদি লিখিতভাবে আমাদের বিষয়টি জানায়, তাহলে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকল প্রকার ব্যবস্থা নেয়ার চেষ্টা করব।