মিরসরাইয়ে গার্মেন্টস পার্ক করতে সমঝোতা

নিজস্ব প্রতিবেদক | বৃহস্পতিবার, মার্চ ২২, ২০১৮
মিরসরাইয়ে গার্মেন্টস পার্ক করতে সমঝোতা
চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ের অর্থনৈতিক অঞ্চলে গার্মেন্টস পার্ক স্থাপন করবে বিজিএমইএ। এর জন্য  ৫০০ একর জমি বরাদ্দ দান বিষয়ে বুধবার বেজা (বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ) ও বাংলাদেশ গার্মেন্ট ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স এসোসিয়েশন (বিজিএমইএ)'বিজিএমইএর মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর হয়েছে।

বেজার পক্ষে সমঝোতা স্মাক্ষর করেন নির্বাহী সদস্য হারুনুর রশিদ এবং বিজিএমইএ এর পক্ষে সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান।

রাজধানীর এক অভিজাত হোটেলে এ উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সমন্বয়কারী (এসডিজি) আবুল কালাম আজাদ, বিশেষ অতিথি ছিলেন বাণিজ্য সচিব শুভাশীষ বোস, এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি সফিউল ইসলাম (মহিউদ্দিন), বিজিএমইএর সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান, বাংলাদেশ এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আব্দুস সালাম মুর্শেদীসহ, বিজিএমইএ’র পরিচালকবৃন্দ, সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ, ব্যবসায়ী বিনিয়োগকারী এবং সরকারি কর্মকর্তারা।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘এ উদ্যোগের ফলে বিজিএমইএ এবং বেজার মধ্যে সম্পর্ক আরও দৃঢ় হবে এবং ভবিষ্যতে এ ধরনের প্রকল্পের সফল বাস্তবায়নে বেজা ও বিজিএমইএ একত্রে কাজ করবে।’

চলতি বছরের ডিসেম্বরেই মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলে গার্মেন্টস পার্কের অবকাঠামো নির্মাণ কাজ শুরু হবে বলে জানিয়ে আবুল কালাম আজাদ বলেন, বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা সবচেয়ে সাহসী। তারা দুঃসাহসী। গ্যাস, বিদ্যুৎ, জমি, ক্যাপিটাল, লেবার সংকট রয়েছে। তারপরেও আমাদের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ৭.২ শতাংশ। গত দশ বছরে আমাদের জিডিবি বেড়েছে তিন গুণ। আমার মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হয়েছি। এ উপলক্ষ্যে সরকারি সেবা সপ্তাহ পালন করা হবে।

তিনি বলেন, দেশে ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ করতে যা যা প্রয়োজন তা করবে সরকার। আপনারা এগিয়ে আসবেন সরকারও এগিয়ে আসবে।

বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী বলেন, বিজিএমইএ দ্রুত এ প্রকল্প বাস্তবায়নের কারণে ঢাকা শহরের ওপর জনস্রোতের চাপ কিছুটা হলেও হ্রাস পাবে। একই সাথে সমুদ্রবন্দরের নিকটবর্তী হওয়ায় পরিবহন ব্যয় কম হবে। এতে করে প্রতিযোগিতামূলক বিশ্ববাজারে বাংলাদেশের পোশাক রপ্তানি বাড়বে।

এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, সামনে আমাদের অনেক কাজ, অনেক চ্যালেঞ্জ। আমরা এখন মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হয়েছি। আমরা অর্থনীতির প্রতিটি ক্ষেত্রেই সফলতা পেয়েছি বলেই আজ দেশ উন্নতির দিকে যাচ্ছে। এদেশকে আরো এগিয়ে নিতে আমাদের প্রত্যেককে একযোগে কাজ করতে হবে।

সভাপতি বলেন, আজকের দিনটি পোশাক শিল্পের জন্য একটি ঐতিহাসিক দিন। অপরিকল্পিতভাবে গড়ে উঠা কারখানাগুলোকে স্থানান্তরের জন্য, সেইসাথে আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন গ্রিন ফ্যাক্টরি গড়ে তোলার জন্য বিজিএমইএ বেজার কাছে মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলে ৫০০ একর জমি চেয়েছিল। সেই অনুরোধে সাড়া দিয়ে সরকার বিজিএমইএকে গার্মেন্টস পার্ক স্থাপনের জন্য মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলে ৫০০ একর জমি বরাদ্দ দিয়েছেন। এর মাধ্যমে পোশাক শিল্পের দীর্ঘদিনের একটি দাবি পূরণ হলো। তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন, মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলে সরকার পোশাক শিল্পের উদ্যোক্তাদের চাহিদা অনুযায়ী সবধরনের সুযোগ সুবিধা প্রদান করবে।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন নিশ্চিত করার উদ্দেশ্যে অর্থনৈতিক অঞ্চল আইন, ২০১০-এর ক্ষমতাবলে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ (বেজা) প্রতিষ্ঠা করে সরকার। এ প্রতিষ্ঠানের উদ্যোগে দেশে ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা করা হবে ২০৩০ সালের মধ্যে। সেখানে শিল্পপ্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার জন্য প্রয়োজনীয় সব সুবিধা থাকবে।

বিজিএমএর পক্ষ থেকে বলা হয়, মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলে দুই বিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করার পরিকল্পনা করছে বিজিএমএ। যার মাধ্যমে প্রায় পাঁচ লাখ মানুষের কর্মসংস্থান হবে বলেও আশা করছে সংগঠনটির কর্মকর্তারা।