নিজ বাড়িতে চিরশয্যায় ফয়সাল

শরীয়তপুর প্রতিনিধি | শুক্রবার, এপ্রিল ৬, ২০১৮
 নিজ বাড়িতে চিরশয্যায় ফয়সাল

নিজ বাড়ির কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে নেপালের কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন বিমানবন্দরে ইউএস বাংলার বিমান দুর্ঘটনায় নিহত ফয়সাল আহমেদকে, নাজিয়া আফরিন চৌধুরীর লাশ ভেবে ভুলবশত যাকে বনানী কবরস্থানে দাফন করা হয়েছিল।

শুক্রবার রাত চারটার দিকে শরীয়তপুরের ডামুড্যায় নিজ বাড়ির পারিবারিক কবরস্থানে ফয়সালকে দাফন করা হয়। এ সময় ঢাকার নাজিয়া আফরিন চৌধুরীর বদল হওয়া মরদেহ কবর থেকে উত্তোলন করে তার স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

এর আগে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ফয়সালের মরদেহ রাজধানীর বনানী কবরস্থান থেকে উত্তোলন করা হয়। রাত সাড়ে তিনটার দিকে একটি অ্যাম্বুলেন্সে করে মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় শরীয়তপুরের ডামুড্যা উপজেলার নিজ বাড়িতে। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুজী আক্তারের উপস্থিতিতে ফয়সালের বাড়িতে ভুল করে দাফন করা নাজিয়ার মরদেহ তুলে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়। এবং ফয়সালের মরদেহ ফের দাফন করা হয়।

ইউএনও ছাড়াও ফয়সালের ভাই সাইফুল, মামা কায়কোবাদ, নাজিয়ার স্বামী মনিরুল, বড় ভাই আলী আহাদসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

ফয়সালের ভাই সাইফুল জানান, ভুল সংশোধন করে দাফন না করলে আমাদের মধ্যে সারাজীবন আক্ষেপ থাকতো। এখন সেই আক্ষেপটা আর থাকলো না।

উল্লেখ্য, গত ১২ মার্চ কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন বিমানবন্দরে ইউএস বাংলার একটি বিমান বিধ্বস্ত হয়ে ৫২ জনের প্রাণহানি হয়। তাদের মধ্যে ২৭ জনই বাংলাদেশি নাগরিক। নিহতদের মধ্যে ১৯ মার্চ ২৩ জনের মরদেহ ঢাকায় এনে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

সেদিন পরিবারের কাছে মরদেহ হস্তান্তরের সময় ভুলক্রমে সাংবাদিক ফয়সাল ও নাজিয়া আফরিন চৌধুরীর লাশ অদল-বদল হয়ে যায়। উভয় পরিবার বিষয়টি জানলে মরদেহ উত্তোলন করে যার যার নির্ধারিত স্থানে নতুন করে দাফনের জন্য আদালতের কাছে অনুমতি চেয়ে আবেদন করেন। পরে আদালত তাদের মরদেহ নিজ নিজ পরিবারের কাছে হস্তান্তরের নির্দেশ দেন।