খাদিজা খাতুন সেতু এখন সাহুল সিদ্দিকী

সিরাজগঞ্জ | শুক্রবার, এপ্রিল ৬, ২০১৮

খাদিজা খাতুন সেতু এখন সাহুল সিদ্দিকী
হরমোনে পরিবর্তনের কারণে সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলায় খাদিজা খাতুন সেতু নামের ১৯ বছর বয়সী এক তরুণীর পুরুষে রূপান্তর হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। উপজেলার তাড়াশ সদর ইউনিয়নের তাড়াশ গ্রামের দক্ষিণ পাড়ায় বাড়ি তার।

শুক্রবার সকালে এ খবর ছড়িয়ে পড়লে সাধারণ মানুষ হুমড়ি খেয়ে পড়ে বাড়িতে। আগের জীবন এবং বদলে যাওয়া জীবন নিয়ে প্রশ্নের যেন শেষ নেই মানুষের। জনতার ভিড় সামলাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে পরিবারকে।

নারী থেকে পুরুষে রূপান্তরিত মানুষটির বাবা হাসমত আলী জানান, স্থানীয় স্কুল-কলেজ থেকে এসএসসি ও এইসএসসি পাস করেন সেতু। গত বছর ঢাকায় একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং নিয়ে পড়ালেখা শুরু করেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন সহপাঠী প্রথমে সেতুর পুরুষে পরিণত হওয়ার বিষয়টি তাকে জানায়। কয়েকদিন পর সেতু নিজেই থেকেই বাবা-মাকে জানিয়ে দেন।

সেতুর মা নাজমা খানম জানান, তার সন্তানের শারীরিক পরিবর্তন ঘটেছে। খাদিজা খাতুন সেতুর নাম রাখা হয়েছে সাহুল সিদ্দিকী।

সাহুল সিদ্দিকী জানান, গত ৩০ মার্চ রাতে ঘুম থেকে জেগে হঠাৎ তার শারীরিক পরিবর্তন লক্ষ্য করেন। পরে বাবা-মা ও নিকট আত্মীয়দের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করেন। এরপর এক অভিজ্ঞ ডাক্তারের মাধ্যমে  নারী থেকে পুরুষে রূপান্তরিত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত হন।

তাড়াশ সদর ইউপি চেয়ারম্যান বাবুল শেখ এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। জানিয়েছেন, তিনি ঘটনাটি শুনে ভেবেছিলেন লোকে বানিয়ে বলছে। কিন্তু পরে নিজে গিয়ে জেনেছেন এর সত্যতা।

তাড়াশ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা এহিয়া কামাল জানান, হরমোনের কারণে এরকম দৈহিক পরিবর্তন হতে পারে। এটি বিরল হলেও অস্বাভাবিক কিছু নয়।

জানতে চাইলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের এনড্রো গাইনোলজি ও মেটাবলিক বিভাগের প্রধান অধ্যাপক এম এ জলিল আনসারী ঢাকাটাইমসকে বলেন, কিডনির উপরে একটি পদার্থ থাকায় অনেক ক্ষেত্রে এমনটি হয়। কোনো কোনো ক্ষেত্রে পুরুষ ও মহিলাদের হরমনের তারতম্যের কারণে এমনটি হয়। তবে সঠিক চিকিৎসা করলে সুন্দর দাম্পত্য জীবনযাপন করতে পারবে।