শিশু ধর্ষণের অভিযোগে কবিরাজ গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক | শনিবার, মে ১৯, ২০১৮

শিশু ধর্ষণের অভিযোগে কবিরাজ গ্রেপ্তার
টাঙ্গাইলের মধুপুরে ছয় বছরের এক শিশুকে যৌননিপীড়নের অভিযোগে পঞ্চান্ন বছর বয়সী ফরমান আলী নামে এক কবিরাজকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শুক্রবার রাতে উপজেলার চাপড়ি বাজার থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

মধুপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) নজরুল ইসলাম এ তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, উপজেলার চাপড়ি বাজার এলাকার ফরমান কবিরাজের বাসায় ভাড়া থাকতেন একই উপজেলার দড়িহাতীল গ্রামের আব্বাস আলী।

আব্বাস আলী হোটেল শ্রমিকের কাজে বাড়ির বাইরে থাকলেও দুটি শিশু সন্তানকে নিয়ে বাসায় থাকতেন তার স্ত্রী আমিনা বেগম। আমিনা বেগমের বড় মেয়েকে প্রায়ই যৌননিপীড়ন করতেন ফরমান আলী।

সর্বশেষ গত ১০/১২ দিন আগে শিশুটিকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠে ফরমান আলীর বিরুদ্ধে। মেয়েটির চিৎকারে মা আমিনা এগিয়ে আসলে ঘর থেকে বেরিয়ে আসে ফরমান আলী। পরের দিন ফরমান তার স্ত্রীকে নিয়ে ঢাকায় চলে যায়। ধর্ষণের ফলে মেয়েটির রক্তক্ষরণ হলে স্থানীয় চিকিৎসক সুকুমার সরকার প্রাথমিক চিকিৎসা দেন।

১৭ মে ফরমান এবং মেয়েটির বাবা আব্বাস আলী বাড়িতে আসলে আমিনা বেগম ঘটনা খুলে বলেন। আব্বাস আলী স্থানীয় মাতব্বরদের জানালে ওই দিন রাতে পাশের সংগ্রামপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম মিয়ার বাসায় সালিশ হয়। সেখানে শিশু যৌননিপীড়নের অভিযোগ শোনে আইনগত ব্যবস্থা নিতে বলা হয়।

শিশুটির মা আমিনা বেগম জানান, দীর্ঘদিন ধরে ফরমান আমার অবুঝ মেয়েকে এভাবে নির্যাতন করে আসছে। আমি এই ঘটনার উপযুক্ত বিচার চাই।

স্থানীয় চিকিৎসক সুকুমার সরকার জানান, মেয়েটির রক্তক্ষরণ হয়েছে।

স্থানীয় কুড়ালিয়া ইউপি সদস্য আমজাদ আলী সরকার জানান, মেয়েটির মা-বাবা আমার কাছে জানালে ঘটনাস্থলে গিয়ে শিশুটির কথা শুনে আইনগত ব্যবস্থা নিতে বলেছি।

সংগ্রামপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম মিয়া জানান, যখন শুনেছি ছয় বছরের শিশু যৌননিপীড়ন হয়েছে তখনই পুলিশকে জানাতে বলেছি। কারণ শিশু যৌননিপীড়নের বিচার করার অধিকার স্থানীয় চেয়ারম্যান বা মাতব্বরদের নেই।

মধুপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) নজরুল ইসলাম জানান, অভিযোগ পেয়ে ফরমান আলীকে গ্রেপ্তার করে শনিবার দুপুরে আদালতে পাঠানো হয়েছে। সেই সাথে ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।