চাঁচা ভাতিজাকে কুপিয়ে জখমের ঘটনায় লেডি সন্ত্রাসী গ্রেফতার

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি:- | রবিবার, জুন ৩, ২০১৮
চাঁচা ভাতিজাকে কুপিয়ে জখমের ঘটনায় লেডি সন্ত্রাসী গ্রেফতার

জেলার বন্দর উপজেলার ধামগড় ইউনিয়নের ধামগড় গ্রামে সীমানা নিয়ে বিরোধের জের ধরে চাঁচা ভাতিজাকে গত শুক্রবার বিকেলে কুপিয়ে জমখ করার ঘটনায় লেডি সন্ত্রাসী গ্রেফতার হয়েছে।

  থানা সূত্রে জানা যায়, ধামগড় গ্রামের মৃত মিন্নত আলীর ছেলে নব্য ক্যাডার আমিনুল ইসলাম (৪৫) ও আমিনুল ইসলামের দুই ছেলে সাদেকুল ইসলাম অপু(২৪), ফরহাদ আলম সানী (২২) এবং লেডি সন্ত্রাসী আমিনুল ইসলামের স্ত্রী আসমা বেগম (৪২) সহ অজ্ঞাত বেশ কয়েক সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে, একই এলাকার মো. নুরুল ইসলাম (৬০) ও তার ভাতিজা মেহফুজ আলম (৩০) এর বাড়িতে গিয়ে, শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৫টায় হামলা চালায়।
সন্ত্রাসীদের হামলায় গুরুত্বর আহত হয় নুরুল ইসলাম ও তার ভাতিজা মেহফুজ আলম। সরেজমিনে দেখা যায়, সন্ত্রাসীদের ধারালো চাপাটির আঘাতে নুরুল ইসলামের মাথায় ও হাতে জখমের চিহ্ন। অপর দিকে তার ভাতিজা মেহফুজ আলমকে, হত্যার উদ্দেশ্যে ১ নং আসামী আমিনুল ইসলাম চাপাটি দিয়ে মাথায় কোপ মারিলে, বাম হাত দিয়ে তা প্রতিহত করেন। এতে মেহফুজের বাম  হাতে জখমের চিহ্ন রয়েছে।
তাছাড়া, শরীরের বিভিন্ন স্থানে নিলাফুলা আঘাতের চিহ্ন দেখা গেছে। এ সময় সন্ত্রাসীরা নুরুল ইসলামের পকেটে থাকা নগত ১৭ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় আহতরা বন্দর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

পরে নুরুল ইসলামের ছেলে মো. মাহবুব আলম  থানায় বাদী হয়ে, একটি  মামলা দায়ের করেন, যাহার নং ০৩-তাং-০২-০৬-১৮। এ ব্যাপারে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এস আই সাইয়েদুল শনিবার বেলা ৩টায় মুঠোফোনে জানান, আমরা আসামীদের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে মামলার ৪নং আসামী মোসা. আসমা বেগমকে গ্রেফতার করেছি। অপর প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বাকি আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।
এ বিষয়ে, আমিনুল ইসলাম ও তার দুই ছেলে সাদেকুল ইসলাম অপু এবং ফরহাদ আলম সানী সহ বাকি আসামীদের দ্রুত গ্রেফতার ও পুলিশ সুপার মঈনুল হকের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছেন   এলাকাবাসী।