চাঁদপুরে নিজ বাসায় আ.লীগ নেত্রী খুন, স্বামী আটক

চাঁদপুর প্রতিনিধি, | মঙ্গলবার, জুন ৫, ২০১৮

চাঁদপুরে নিজ বাসায় আ.লীগ নেত্রী খুন, স্বামী আটক
চাঁদপুর শহরে নিজ বাসায় খুন হয়েছেন এক কলেজ শিক্ষিকা। তার নাম শাহিনা সুলতানা ফেন্সি। তিনি ফরিদগঞ্জ গল্লাক আদর্শ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ ও মহিলা আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য। হত্যাকাণ্ডে জড়িত অভিযোগে ফেন্সির স্বামী জহিরুল ইসলামকে আটক করেছে চাঁদপুর মডেল থানা পুলিশ।

সোমবার দিবাগত রাত ১০টার দিকে শহরের ষোলঘর পাকা মসজিদের দক্ষিণে শেখ বাড়ি রোডের নিজ বাসায় এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

নিহত ফেন্সির স্বামী জহিরুল ইসলামের গ্রামের বাড়ি চাঁদপুর সদর উপজেলার মৈশাদী ইউনিয়নের শিলন্দিয়া গ্রামে। তার বাবার নাম মো. নুরুল ইসলাম মিয়াজী। তিনি চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক ও চাঁদপুর জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি।

নিহতের বড় ভাই ষোলঘর আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. নঈমুদ্দিন খান জানান, তার ভগ্নিপতি জহির দ্বিতীয় বিবাহ করেছেন। প্রথম স্ত্রী হচ্ছেন তার বোন ফেন্সি। তার বোনের সংসারে তিন মেয়ে রয়েছে। তাদের তিনজনেরই বিয়ে হয়েছে। দুই মেয়ে দেশের বাইরে থাকেন। জহিরের দ্বিতীয় বিয়ে নিয়ে তাদের মধ্যে প্রায়ই পারিবারিক কলহ লেগে থাকতো। এই বিরোধের জেরেই জহির তার বোনকে হত্যা করেছে বলে দাবি করছেন তিনি।

নিহতের ছোট ভাই ফোরকান জানান, লোক মারফতে খবর পেয়ে তারা ঘটনাস্থলে ছুড়ে গিয়ে ফেন্সিকে ঘরের মেঝেতে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন। তার মাথায় আঘাতের চিহ্ন ও শরীরের ভিভিন্ন স্থানে রক্তমাখা ছিল।

খবর পেয়ে চাঁদপুর মডেল থানা পুলিশ, জেলা গোয়েন্দা পুলিশ, পুলিশ ইনভেস্টিকেশন অব ব্যুরো (পিআইবি), চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ ঘটনাস্থলে ছুটে যান।

তবে জহিরের ছোট ভাই নয়নের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে ‍তিনি জানান, তার ভাই জহির মসজিদ থেকে নামাজ শেষ করে বাসায় গিয়ে ঘরের দরজা খোলা দেখতে পান। পরে ভেতরে ঢুকে তার স্ত্রীর মরদেহ মেঝেতে পড়ে থাকতে দেখেন। তখনই জহির বিষয়টি আত্মীয়-স্বজন এবং পুলিশকে অবহিত করেন।

জানতে চাইলে মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওয়ালী উল্লাহ অলি জানান, নিহতের মাথায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। মাথার মাঝামাঝি স্থানে বড় ধরনের আঘাত রয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহতের স্বামী জহিরকে আটক করা হয়েছে।