জার্মানি ভ্রমণের সুযোগ পাচ্ছেন ‘পতাকা আমজাদ’

অনলাইন ডেস্ক | বুধবার, জুন ৬, ২০১৮
 জার্মানি ভ্রমণের সুযোগ পাচ্ছেন ‘পতাকা আমজাদ’

পৃথিবীর সর্ববৃহৎ জার্মান পতাকা বানালেন মাগুরার ‘পতাকা আমজাদ’ খ্যাত আমজাদ হোসেন। নিজের জমি বিক্রি করে আসন্ন ফুটবল বিশ্বকাপ উপলক্ষে সাড়ে পাঁচ কিলোমিটার দীর্ঘ পতাকাটি তৈরি করেন জার্মানি ফুটবল দলের এই সমর্থক।

মঙ্গলবার সকালে মাগুরা নিশ্চিন্তপুর স্কুল মাঠে বিশাল এ পতাকা প্রদর্শন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে জার্মান দূতাবাসের ডিপ্লোম্যাট ক্যারেন উইজোরা খাগিন এবং শিক্ষা ও সংস্কৃতি কর্মকর্তা তামারা কবির ছাড়াও বিপুলসংখ্যক এলাকাবাসী উপস্থিত ছিল। এ সময় পতাকা আমজাদের জার্মানি ভ্রমণের ব্যবস্থা করার কথা জানান জার্মান দূতাবাস কর্মকর্তারা।এ বিষয়ে আমজাদ জানান, ২০০৪ সালের বিশ্বকাপে নিজের জমি বিক্রি করে সাড়ে তিন কিলোমিটার দীর্ঘ পতাকা তৈরি করেছিলেন তিনি। সে সময় জার্মানির রাষ্ট্রদূত মাগুরা এসে তাকে সংবর্ধনা দিয়েছিলেন। এবার ১০ শতক জমি বিক্রির অর্থ এবং কিছু মানুষের সহযোগিতায় পতাকার দৈর্ঘ্য সাড়ে পাঁচ কিলোমিটার দীর্ঘ করেছেন। কোনো কিছু পাওয়ার আশায় নয়, শুধুমাত্র ফুটবলের প্রতি ভালোবাসা থেকেই তার এই উদ্যোগ।আমজাদের আশা, এবারও জার্মান দল চ্যাম্পিয়ন হবে। আর চ্যাম্পিয়ন হলে তিনি মাগুরা স্টেডিয়ামে পতাকা প্রদর্শন ও জমকালো অনুষ্ঠানের আয়োজন করবেন।পাশাপাশি ১৪ জুন জার্মান ফ্যান ক্লাবের পক্ষ থেকে ঢাকার বসুন্ধরা এলাকায় এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। সেখানে মাগুরার জার্মান ফুটবল ভক্তদের আগাম আমন্ত্রণ জানান তিনি।জার্মান ভ্রমণের খবর পাওয়ার খুশিতে আমজাদ বলেন, জীবিত থাকলে ২০২২ সালের বিশ্বকাপে ২২ কিলোমিটার লম্বা জার্মানির পতাকা উপহার দেব।জানা যায়, মাগুরা সদরের ঘোমারা গ্রামের আমজাদ হোসেন (৫৫) কিশোর বয়সে কঠিন ব্যাধিতে আক্রান্ত হন। পরে স্থানীয় একজন চিকিৎসকের পরামর্শে তিনি জার্মানির হোমিওপ্যাথি ওষুধ খেয়ে সুস্থ হন। সেই থেকে জার্মান ও জার্মান ফুটবল দলের একনিষ্ঠ ভক্ত হয়ে যান তিনি।বাংলাদেশে জার্মান দূতাবাসের ডিপ্লোম্যাট ক্যারেন উইজোরা খাগিন বলেন, আমরা আমজাদের এই উদ্যোগে অভিভূত। এটি এখন পৃথিবীর সবচেয়ে বৃহৎ জার্মান পতাকা। তাই আমরা পতাকাটি দেখতে মাগুরা ছুটে এসেছি। আমরা জানি আমজাদ অনেক কষ্ট করে এটি তৈরি করেছেন। তাই আমাদের কর্তব্য তার পাশে থাকা। আমরা তার পাশে থাকবো এবং আমজাদের জার্মানি সফরের জন্য প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিয়ে তাকে জার্মান ভ্রমণের সুযোগ করে দেব।উইজোরা খাগিন আরও বলেন, আগামী বিশ্বকাপেও জার্মান চ্যাম্পিয়ন হবে এবং শিগগিরই বাংলাদেশ বিশ্বকাপ খেলবে এ আশাও রাখি।জার্মান দূতাবাসের শিক্ষা ও সংস্কৃতি কর্মকর্তা তামারা কবির বলেন, আমজাদ বাংলাদেশ ও জার্মানির মধ্যে একটি দারুণ বন্ধুত্বের স্বাক্ষর রেখেছেন। আগামীতে বাংলাদেশের ফুটবলকে কীভাবে এগিয়ে নেয়া যায় তা নিয়ে আমি জার্মানির যথাযথ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলব।এ সময় বক্তব্য রাখেন মাগুরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তারিকুল ইসলাম, রাজনীতিবিদ ও সমাজসেবক অ্যাডভোকেট হাসান সিরাজ সুজা ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান হাফিজার মোল্লা প্রমুখ।