কাফনের কাপড় জড়িয়ে থানায় সাংবাদিকরা

অপরাধ সংবাদ ডেস্ক | বৃহস্পতিবার, জুন ৭, ২০১৮
কাফনের কাপড় জড়িয়ে থানায় সাংবাদিকরা

রুপগঞ্জে জীবনের নিরাপত্তা দাবিতে কাফনের কাপড় জড়িয়ে রুপগঞ্জ থানার সামনে মিছিল করেছেন সাংবাদিকরা। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে রূপগঞ্জের ৭০সাংবাদিক এখন জিন্দা লাশ স্লোগানে এ কাফন মিছিল করেন।

পুলিশের উপস্থিতিতে সাজাপ্রাপ্ত আসামি ও নামধারী ছাত্রলীগ ক্যাডারদের হত্যার হুমকিতে জাতীয়, স্থানীয়, ইলেকট্রনিক ও অনলাইন মিডিয়ার সাংবাদিকরা এ মিছিল করেন।

জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে রূপগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরিও করেছেন স্থানীয় সাংবাদিকরা।

রুপগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক খলিল শিকদার জানান, গত ০৫ জুন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আবুল ফাতে মো. সফিকুল ইসলাম ও সহকারী কমিশনার (ভুমি) আসাদুজ্জামানের নেতৃত্বে ঢাকা ভিলেজ নামের  একটি আবাসন প্রকল্পের দখলে থাকা প্রায় ১৮ বিঘা সরকারি অর্পিত সম্পত্তি উদ্ধার করে প্রশাসন।

এসব সরকারি সম্পত্তি রূপগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি, সাজাপ্রাপ্ত আসামি মাসুম চৌধুরী অপু বালু ভরাট করে জবরদখল করে দিয়েছিলেন আবাসন প্রকল্পকে।

এ বিষয়ে গত ০৬ মে সরকারি অর্পিত সম্পত্তি বালু ভরাট করে জবরদখল নিয়ে অপুর বিরুদ্ধে বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়।

এর জের ধরে ওই দিন দুপুরে মাসুম চৌধুরী অপু ও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ সভাপতি পরিচয়দানকারী হাফিজুর রহমান সজীবের নেতৃত্বে তাদের সহযোগীরা পুলিশ সদস্যসহ রূপগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে স্বশস্ত্র মোটরসাইকেল মহড়া দেয়।

তারা প্রেসক্লাবে ঢুকেই প্রথমে উপস্থিত কর্মরত ৩৭ সাংবাদিককে দেখে নেয়াসহ প্রাণনাশের হুমকি দেয়। এসব ব্যাপারে বাড়াবাড়ি করলে গুলি করে হত্যার হুমকি দেন তারা।

ঘটনার সময় রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামানকে বিষয়টি প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে অবহিত করা হয়।

পুলিশ সদস্যের উপস্থিতিতেই মাসুম চৌধুরী অপু ও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি পরিচয়দানকারী হাফিজুর রহমান সজীব বলেন, ওসিসহ থানা পুলিশতো আমাদের পকেটে। যেদিন ধরমু খাইয়া ফালাইমু। তোদের একেক জন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ১০টি করে মামলা দেব।

প্রায় পৌণে এক ঘণ্টা প্রেসক্লাব কার্যালয়ে অবস্থানের পর তারা পুলিশের সামনেই হুমকি-ধামকি দিয়ে চলে যায়। তাদের হুমকিতে আতঙ্কিত সাংবাদিকরা প্রাণ ভয়ে প্রেসক্লাবে তালা ঝুলিয়ে পালিয়ে আসেন।

এখনও সাংবাদিকরা পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। হত্যার ভয়ে প্রেসক্লাবে যাওয়ার সাহস পাচ্ছেন না সাংবাদিকরা। মামলা হামলা বা হত্যার ভয়ে প্রেসক্লাবের ৭০ সাংবাদিক জীবনের নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছেন।

রূপগঞ্জ প্রেসক্লাব সহ-সভাপতি মকবুল হোসেন বলেন, একজন সাজাপ্রাপ্ত আসামি পুলিশ প্রহরায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন। সাংবাদিকদের হত্যার হুমকি দিচ্ছেন। অথচ পুলিশ কিছুই করছে না। আমরা আমাদের জীবনের নিরাপত্তা চাই।