ট্রেনের টিকিট কালোবাজারি, দুই বোনের কারাদণ্ড

অনলাইন ডেস্ক | বুধবার, জুন ১৩, ২০১৮
ট্রেনের টিকিট কালোবাজারি, দুই বোনের কারাদণ্ড

রাজশাহীতে ট্রেনের টিকিট কালোবাজারির অপরাধে দুই নারীর কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। সম্পর্কে তারা দুই বোন।

বুধবার বেলা ১১টার দিকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার মামনুন আহমেদ অনীক তাদের প্রত্যেককে এক মাস করে বিনাশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেন।

এর আগে কালোবাজারে টিকিট বিক্রির সময় রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশন থেকে তাদের আটক করে র‌্যাব-৫ এর একটি দল।

দণ্ডপ্রাপ্ত দুইজন হলেন, নগরীর চন্দ্রিমা থানার ভদ্রা জামালপুর মহল্লার নজরুল ইসলামের স্ত্রী সুমনা আক্তার (৩৫) ও মতিহার থানার তালাইমারী শহীদ মিনার এলাকার কাইয়ুম আলীর স্ত্রী সুমি খাতুন (৩২)।

সহকারী কমিশনার মামনুন আহমেদ অনীক জানান, দণ্ডপ্রাপ্ত দুই নারীর কাছ থেকে আটটি টিকিট উদ্ধার করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানিয়েছে, তাদের বড় ভাই কালোবাজারে টিকিট বিক্রি সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রণ করেন। তার মাধ্যমেই তারা দুই বোন কালোবাজারিতে জড়িয়েছেন। দণ্ড দেয়ার পর তাদের রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

গত শনিবার থেকে ঈদের পরের ফিরতি ট্রেনের টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। প্রথম দিনই স্টেশনে চার কালোবাজারিকে গ্রেপ্তার করা হয়। এছাড়া পরদিন রোববার দুজন এবং মঙ্গলবার আরও ছয়জন কালোবাজারিকে গ্রেপ্তার করে ভ্রাম্যমাণ আদালতে সাজা দেয়া হয়।

কালোবাজারি ঠেকাতে অগ্রিম টিকিট বিক্রির প্রথম দিন থেকেই স্টেশনে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত, র‌্যাব ও পুলিশ সদস্যরা অবস্থান করছেন।

জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার মামনুন আহমেদ অনীক জানান, অগ্রিম টিকিট যতদিন বিক্রি করা হবে ততদিনই তারা স্টেশনে অবস্থান করবেন। বুধবার আগামী ২২ জুনের ফিরতি ট্রেনের টিকিট বিক্রি করা হচ্ছিল। স্টেশনের টিকিট বিক্রির কাউন্টারের সার্ভার রুমে বসে তিনি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত বগির ৪৬০টি টিকিটই বিক্রি নিশ্চিত করেছেন।