ভাঙ্গায় গোপন বৈঠকের সময় জামায়াতের ৪৬ নেতা-কর্মী আটক

মোঃ রমজান সিকদার, ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি | সোমবার, জুন ১৮, ২০১৮
ভাঙ্গায় গোপন বৈঠকের সময় জামায়াতের ৪৬ নেতা-কর্মী আটক
ফরিদপুরের ভাঙ্গায় সোমবার সকালে গোপন বৈঠক চলাকালে জামায়াতের জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের ৪৬ নেতাকর্মীকে আটক করেছে থানা পুলিশ। সকালে উপজেলার চান্দ্রা ইউনিয়নের সোনামুয়ী গ্রামের কয়ালবাড়ি মসজিদ থেকে তাদের আটক করা হয়। থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কাজী সাঈদুর রহমান জানায়, সরকারের উন্নয়ন মুলক কাজে নাশকতার সৃষ্টির জন্য গোপন বৈঠক চলাকালে এলাকাবাসী থানায় খবর দিলে মসজিদ থেকে সকালে ৪৬ জন জামায়াত নেতা কর্মীদের আটক করা হয়। আটককৃতদের বাড়ী ফরিদপুর, মাদারীপুর, গোপালগঞ্জ জেলার বিভিন্ন উপজেলায়।
 তিনি আরো জানান, ভাঙ্গা জামায়াতের উপজেলা আমির ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সরোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে ভোর রাত থেকে তারা ওই মসজিদে গোপন বৈঠক শুরু করে। আটকের সময় তাদের কাজ থেকে প্রচুর জিহাদী বই উদ্ধার করা হয়।
 এব্যাপারে ভাঙ্গা থানার উপ-পরিদর্শক শামচুল হক সুমন বাদী হয়ে ভাঙ্গা থানায় ৪৬ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলার আসামীরা ভাঙ্গা বিশ্বরোডের চৌরাস্তা মোড়ে নির্মাধীন ফ্লাইওভার কাজে নিয়োজিত বীদেশীদের ক্ষতি করতেই গোপন বৈঠক করছিল। আসামীদের বিকালেই কড়া নিরাপত্তায় আদালতে প্রেরন করা হয়েছে।
 মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ভাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মিরাজ হোসেন বলেন, আসামীদের রিমান্ডে এনে তাদের মুল পরিকল্পনা বের করা হবে। মামলার আসামীরা হলো জেলা আঞ্চলিক জামায়াতের সাবেক আমির মোঃ দেলোয়ার হোসেন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও ভাঙ্গা উপজেলা জামায়াতের আমির সরোয়ার হোসেন, চান্দা ইউনিয়ন জামায়াতের আমির, চান্দ্রা ইউনিয়ন আমির আবতাফউদ্দিন মিয়া, চান্দ্রা ইউনিয়ন জামায়াত সম্পাদক আব্দুস সালাম মুন্সি, ভাঙ্গা উপজেলা জামায়াতের রোকন ডাঃ এনায়েত হোসেন, রিপন হাওলাদার, জিন্নাত আলী, উপজেলা জামায়াতের সেত্রেুটারি রোকনউদ্দিন খান, জাহাঙ্গির হোসেন, সাফায়েত হোসেন আজাদ, রফিকুল হাসান মাসুম, জামায়াতের রোকন আক্তারউদ্দিন তালুকদার, মোঃ মিজানুর রহমান, ফজলুল হক, সিরাজুল হক চৌধুরী, মোঃ আলমগীর হোসেন, জামায়াতের রোকন মোঃ মজিবুর রহমান মোল্লা, আইয়ুব আলী মোল্লা, মোঃ আজিম খান, হাজী নুরুলহক মোল্লা, মোঃ আলী হোসেন, সরকারি কেএম কলেজের প্রভাষক আরিফুজ্জামান, তুজারপুর ইউনিয়নে জামায়াতের আমির ফজলূর রহমান, নাসির উদ্দিন, মোঃ আবু জাফর, মহিউদ্দিন আহম্মেদ, মিজানুর রহমান, উপজেলা জামায়াতের সাংগঠনিক সম্পাদক শামচুল আলম, মোঃ রিপন সেক, রাইসুল ইসলাম, মোঃ রুমানউল্লাহ, জামায়াতের রোকন রইসউদ্দিন, মহিউদ্দিন আহম্মেদ, মাহামুদুল বাহার, জামায়াতের রোকন তৈয়াবআলী মোল্লা, আহম্মেদ আলী, কহিনুর মিয়া, মোঃ সুমন হোসেন, মোঃ আঃ রসিদ হাওলাদার রাসেদ, ওহিদুল ইসলাম, মাওলানা গিয়াসউদ্দিন, হাজী আঃ রসিদ মোল্লা, মোঃ আব্দুস সালাম, মোঃ বিল্লাল হাওলাদার, মোঃ কবিরউদ্দিন মিয়া, সুর্য মিয়া মোল্লা।