বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের ঘরবাড়ি বানিয়ে দিবে সরকার: ত্রাণ মন্ত্রী

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি: | সোমবার, জুন ১৮, ২০১৮
বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের ঘরবাড়ি বানিয়ে দিবে সরকার: ত্রাণ মন্ত্রী
দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া সবাইকে বানভাসী মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহবান জানিয়ে বলেছেন, বন্যার পানি নেমে গেলে সরকারের পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্তদের ঘরবাড়ি তৈরি করে দেওয়া হবে।

মঙ্গলবার দুপুরে মৌলভীবাজার শহরের ৬নং ওয়ার্ডে বড়হাট এলাকায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ কালে তিনি এসব কথা বলেন।
এ সময় তিনি ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ৫০০ মেট্রিক টন চাল, ৪০ লাখ টাকা ও ১ হাজার টিন বরাদ্দ দেন।

মায়া বলেন, বন্যার পানি কমতে শুরু করেছে। বন্যার পানি কমার সাথে সাথে ক্ষতিগ্রস্ত ঘরবাড়ি, রাস্তাঘাট নির্মাণের কাজে হাত দেবে সরকার।

ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে মৌলভীবাজার সদর রাজনগর আসনের সংসদ সদস্য সৈয়দা সায়রা মহসিন সাবেক চিফ হুইপ আব্দুস শহিদ এমপি, জেলা প্রশাসক মো: তোফায়েল ইসলাম, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাহ জালাল, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নেছার আহম্মদ, সাধারণ সম্পাদক মো. মিছবাহুর রহমান, যুগ্ম সম্পাদক ও পৌর মেয়র মো. ফজলুর রহমান, যুগ্ন সম্পাদক সৈয়দ নওশের আলী খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট রাধা পদ দেব সজল, জেলা যুবলীগের সভাপতি মো: নাহিদ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ রেজাউল করিম সুমন প্রমুখ ছিলেন।
ভারত থেকে নেমে আসা পানির স্রোতে মনু নদীর বাঁধ ভেঙে মৌলভীবাজার শহরের তিনটি ওয়ার্ড ও তিনটি ইউনিয়নের অর্ধলক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। এর মধ্যে শহরতলীর বড়হাট এলাকা,কুসুমবাগ, বড়কাপন, যোগীডর দূর্লভপুর, ঘরুয়া, বাহারমর্দন, সমপাশি, ভুজবল, খিদুর, দ্বারক, পাগুলিয়া,এবং সদর উপজেলার হিলালপুর ও শেখেরগাওঁ প্লাবিত হয়।

এছাড়াও মৌলভীবাজার জেলায় বন্যায় ৫ উপজেলার ৩০ টি ইউনিয়ন ও দুটি পৌরসভার মোট ৪০ হাজার ২০০ পরিবার ক্ষতি গ্রস্থ হয়েছে।
এর আগে সকালে মন্ত্রী জেলা প্রশাসনের সাথে মৌলভীবাজার সার্কিট হাউসের মুন হলে বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে এক মতবিনিময় করেন।