আবিষ্কার হলো নতুন একটি ক্যান্সার

| বুধবার, জুন ২৭, ২০১৮
আবিষ্কার হলো নতুন একটি ক্যান্সার

নতুন এক ধরনের স্মল-সেল লাং ক্যান্সার (এসসিএলসি) আবিষ্কার করেছেন গবেষকরা। এই আবিষ্কারের ফলে এখন এ রোগে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা আরও উন্নত করা সম্ভব হবে বলে আশা করছেন তারা।

২৫ জুন, সোমবার জিনস অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট জার্নালে প্রকাশিত হয় এই গবেষণার তথ্য। খবর মেডিকাল এক্সপ্রেস

ক্যান্সারের ব্যাপারে প্রচলিত একটি উক্তি হলো, ‘ক্যান্সার একটি রোগ নয়, বরং শত শত আলাদা রোগ।’ অনেক সময় দেখা যায়, ক্যান্সার চিকিৎসক বা অনকোলজিস্টরা সম্ভাবনাময় একটি ওষুধ দিয়েছেন রোগীকে, কিন্তু তা ওই ক্যান্সারের জন্য কাজ করছে না। এ থেকে চিকিৎসকরা ধারণা করেন, ক্যান্সারকে যত সূক্ষ্মভাবে চিহ্নিত করা যাবে, তত ভালোভাবেই তার চিকিৎসা করা যাবে।

এসসিএলসি ধরনের ক্যান্সারের জন্য ইদানিং ওষুধের প্রয়োজনীয়তা বেশি দেখা দিয়েছে। বর্তমানে এর সুনির্দিষ্ট কোনো চিকিৎসা নেই এবং তা খুব দ্রুত ছড়ায়। কেমোথেরাপি, রেডিওথেরাপি এবং অস্ত্রোপচারের পরেও এ ধরনের ক্যান্সারের আক্রান্ত মানুষের মাত্র ৬ শতাংশ রোগ শনাক্ত হবার পর ৫ বছর পর্যন্ত বাঁচেন। সকল ফুসফুসের ক্যান্সারের মাঝে ১০-১৫ শতাংশ হলো বিভিন্ন ধরনের এসসিএলসি।

যুক্তরাষ্ট্রের কোল্ড স্প্রিং হার্বার ল্যাবরেটরির সহকারী অধ্যাপক ক্রিস্টোফার ভ্যাকোচের তত্ত্বাবধানে এই গবেষণা হয়। তারা এসসিএলসি টিউমার নিয়ে গবেষণা করতে গিয়ে ২০ শতাংশ নমুনায় অস্বাভাবিকতা পান। এরপর তারা দেখেন, পালমোনারি নিউরোএন্ডোক্রাইন কোষে নিউরোএন্ডোক্রাইন মার্কার কম রয়েছে। আরও গবেষণার পর দেখা যায়, যেসব কোষে এই মার্কার কম থাকে, সেগুলোতে নতুন এই ধরনের ক্যান্সারের সম্ভাবনা বেশি থাকে। ওই ফলাফল পাওয়ার জন্য বর্তমানে জনপ্রিয় গবেষণা পদ্ধতি ক্রিস্পার (CRISPR) ব্যবহার করেন তারা।  

গবেষকরা জানান, আগে সব এসসিএলসি ক্যান্সারকেই এক কাতারে ফেলতেন তারা। কিন্তু এখন সেগুলোকে আলাদা করার উপায় পাওয়া গেছে। ফলে তাদের জন্য আলাদা আলাদা চিকিৎসা পদ্ধতি ব্যবহার করাটাও সহজ হবে।