পানির নিচে সেতু, দুর্ভোগে গ্রামবাসী

লালমনিরহাট প্রতিনিধি, | শুক্রবার, জুন ২৯, ২০১৮

পানির নিচে সেতু, দুর্ভোগে গ্রামবাসী
সেতু পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় এখন চলাচল করতে পারছেন না লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার তুষভান্ডার ইউনিয়নের কয়েক হাজার মানুষ।  শুকনো মৌসুমে এ দেবে যাওয়া সেতুর ওপর দিয়ে যাতায়াত করে আসছিল এলাকাবাসী। বর্ষা মৌসুমে সেতুটি পুরোপুরি পানির নিচে তলিয়ে যাওয়ায় বন্ধ হয়ে পড়েছে যাতায়াত। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন স্থানীয়রা।

স্থানীয়রা জানায়, গত বছরের ভয়াবহ ক্ষতিগ্রস্ত হয় সেতুটি। এরপর আর মেরামত করা হয়নি। পুরো সেতুটি এখন পানির নিচে তলিয়ে আছে। সবচেয়ে বেশি ভোগান্তিতে পড়েছেন স্কুল-কলেজে পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, এক বছর পেরিয়ে গেলেও ইউনিয়নের দক্ষিণ ঘনেশ্যাম মাস্টার পাড়া এলাকার বন্যায় ধ্বংস প্রায় সেতুটি মেরামতের কোন উদ্যোগ নেয়া হয়নি। শুষ্ক মৌসুমে ঝুকি নিয়ে সেতুটির উপর দিয়ে লোকজন পারাপার হলেও সম্প্রতি বৃষ্টির পানি জমে সেতুটি আরও দেবে গিয়ে পানিতে তলিয়ে গেছে।

এতে সেতুটির দুইপাশের এলাকার হাজার হাজার মানুষ সীমাহীন দুর্ভোগে পড়েন।

ওই এলাকার কলেজ শিক্ষার্থী তাওহিদ হাসান শুভ বলেন, ২০১৭ সালের আগস্ট মাসে ভয়াবহ বন্যায় পুরো গ্রাম তুলিয়ে যায়। পানির স্রোতে গ্রাম রক্ষা বাঁধ ও সেতুসহ বেশ কয়েকটি রাস্তা ভেঙে গেলেও তা এখন পর্যন্ত সংস্কারের উদ্যোগ নেয়া হয়নি। আগামী বন্যার আগে গ্রামরক্ষা বাঁধ ও সেতুটি মেরামত না করলে পানির নিচে তলিয়ে যাবে পুরো এলাকা।

এ ব্যাপারে কালীগঞ্জ উপজেলা প্রকৌশলী পারভেজ নেওয়াজ খান বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত সেতুটি নতুন করে নির্মাণ করার জন্য এমপি মহোদয়ের কাছে তদবির করা হয়েছে।

উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মাহবুবুজ্জামান আহমেদ বলেন, শ্রীঘই সেতুটির কাজ শুরু হবে। তবে বন্যার আগেই কাজ শুরু হবে কি না এমন প্রশ্নের কোন সদুত্তর দিতে পারেননি তিনি।