‘দৈনিক আট ঘণ্টা ঘুম যথেষ্ট নয়’

| শনিবার, জুন ৩০, ২০১৮
‘দৈনিক আট ঘণ্টা ঘুম যথেষ্ট নয়’

বেশির ভাগ সময়েই বলা হয় সুস্থ থাকার জন্য দৈনিক অন্তত আট ঘণ্টা ঘুমাতে হবে। তবে সম্প্রতি এক বিশেষজ্ঞ দাবি করেছেন, ঘুমের জন্য আট ঘণ্টাও যথেষ্ট নয়। বিছানায় থাকতে হবে সাড়ে আট ঘণ্টা।

যুক্তরাষ্ট্রের পেন স্টেট ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক ড. ড্যানিয়েল গার্টেনবার্গ ঘুমের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করেন সংবাদমাধ্যম কোয়ার্টজের সঙ্গে। তিনি জানান, সবারই সাড়ে আট ঘণ্টা বিছানায় থাকা উচিত।

ড. গার্টেনবার্গ জানান, একজন মানুষ যে সময়টা বিছানায় থাকে তার ৯০ শতাংশ সময় ঘুমিয়ে কাটায়। অর্থাৎ একজন মানুষ সাড়ে আট ঘণ্টা বিছানায় থাকলে তার আট ঘণ্টা পূর্ণ ঘুম হবে। এ কারণেই সাড়ে আট ঘণ্টা ঘুমের পেছনে ব্যয় করতে হবে।

ঘুম নিয়ে গবেষণা করা এই অধ্যাপক বলেন, ‘অনেকেই বিছানায় যাওয়ার পরেও অনেকটা সময় না ঘুমিয়ে কাটান। স্মার্টফোন বা ল্যাপটপ ব্যবহারের কারণে অনেকে বেশ কিছু সময় জেগে থাকেন। এ কারণে বিছানায় আট ঘণ্টা থাকলেও ঘুম আসলে কম হয়।  ঘুম কম হলে হৃদরোগ এবং ডায়াবেটিসের ঝুঁকি বাড়ে, সেই সঙ্গে কমে আয়ু।’

গার্টেনবার্গ জানান, কিছু কিছু মানুষ অবশ্য কম ঘুমিয়েও সুস্থ থাকেন। তাদের দৈনিক আট ঘণ্টার কম ঘুম হলেও সমস্যা হয় না। কিন্তু এ বৈশিষ্ট্য বংশগত এবং এ ধরনের মানুষ আসলে খুবই কম। বেশির ভাগ মানুষেরই আট ঘণ্টা বা তারও বেশি ঘুম দরকার হয়।

কী করে বুঝবেন আপনার যথেষ্ট ঘুম হচ্ছে না, তা বোঝার একটি সহজ উপায় রয়েছে। ড. গার্টেনবার্গ জানান, আপনি যদি ঘুম থেকে উঠেও ক্লান্ত বোধ করেন এবং সারাদিন ঘুমানোর সময় বের করার চেষ্টা করেন, তাহলে নিঃসন্দেহে আপনার ঘুম কম হচ্ছে।

মে মাসে এক গবেষণায় জানানো হয়, সারা সপ্তাহ যদি আপনার ঘুম কম হয়, তাহলে সাপ্তাহিক ছুটির দিনে একটু বেশি ঘুমিয়ে নিতে পারেন। এতে স্বাস্থ্যের ক্ষতিটা কিছু কমানো যায়।

অতীতের গবেষণায় দেখা যায়, সপ্তাহে সাত দিন দৈনিক পাঁচ ঘণ্টার কম ঘুমালে আয়ু কমে যায়। তবে ছুটির দিনে আট ঘণ্টা বা তার বেশি সময় ঘুমালে ক্ষতি কম হয়।