পাহাড়ি ঢলে বাড়ছে পানি, আতঙ্কে সুনামগঞ্জবাসী

| বৃহস্পতিবার, জুলাই ৫, ২০১৮
পাহাড়ি ঢলে বাড়ছে পানি, আতঙ্কে সুনামগঞ্জবাসী

সুনামগঞ্জে কয়েক দিনের টানা বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় পরিস্থিতি দিন দিন অবনতি হচ্ছে। জেলার সুরমা নদীর পানি বিপদ সীমার ৮০ সেন্টিমিটারের উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় ১০৫ সে.মি. বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। এছাড়াও জেলার ১১টি উপজেলা সীমান্তের ছোট-বড় ৫০টির অধিক ছড়া দিয়ে প্রবল বেগে পাহাড়ি ঢলের পানি প্রবাহিত হওয়ায় পাহাড় ধসের আতঙ্কে রয়েছে তাহিরপুর উপজেলার চারাগাঁও, চানঁপুর, রজনী লাইন, বড়ছড়া, বাগলী সীমান্তসহ জেলার বিভিন্ন উপজেলা সীমান্তে বসবাসকারী মানুষজন।

এছাড়াও জেলার সুরমা, যাদুকাটা নদীসহ প্রতিটি নদী দিয়ে পাহাড়ি ঢলের পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবল বেগে প্রবাহিত হওয়ায় নদী তীরবর্তী বসত বাড়িগুলো রক্ষা করার জন্য ওইসব এলাকার লোকজন করছে পানির সাথে যুদ্ধ। পানিতে তলিয়ে যাচ্ছে মৎস্য চাষের পুকুর, নদীর তীর সংলগ্ন বীজতলা, আবাদি জমিগুলোর ব্যাপক ক্ষতির আশঙ্কা রয়েছে।

জেলার বিভিন্ন উপজেলার স্কুল, হাট-বাজার, বসতবাড়ি, রাস্তা-ঘাট ও নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হওয়ায় আশঙ্কায় সদর, তাহিরপুর, বিশ্বাম্ভরপুর, জামালগঞ্জ, ধর্মপাশা, মধ্যনগড়, দোয়ারা, ছাতক, দোয়ারা বাজার, দিরাই-শাল্লাসহ ১১টি উপজেলার নিম্নাঞ্চলে বসবাসকারী সাধারণ মানুষ উৎকণ্ঠায় রয়েছে।

তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট বাজার ঔষধ কোম্পানির ফারিয়ার সভাপতি সুহেল আহমদ সাজু জানান, জেলা শহরসহ আশেপাশের উপজেলাগুলোর সাথে বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলের পানি বাড়ায় সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ছে। যেভাবে বাড়ছে বৃষ্টি, সেই সাথে বাড়ছে পানি- তাতে করে সীমাহীন ভোগান্তির শেষ থাকবে না জেলাবাসীর।

বালিজুরী ইলাহী বক্স উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক সিদ্দিকুর রহমান বলেন, বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলের পানি বাড়ছে। নিম্নাঞ্চলের স্কুলে পানি প্রবেশ করবে। পানি আরো বাড়লে বিদ্যালয় ক্লাস বন্ধ করে দিতে হবে।

তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল জানান, পানি বাড়ার কারণে তাহিরপুর উপজেলার হাওর এলাকার দ্বীপ সাদৃশ্য গ্রামগুলোতে বসবাসকারী মানুষ রয়েছেন উদ্বেগ আর উৎকন্ঠায়। যে পরিস্থিতি হোক মোকাবেলা করার সর্বাত্মক চেষ্টা অব্যাহত থাকবে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-পরিচালক রঞ্জন কুমার দাশ জানান, বৃষ্টির কারণে নদীতে পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। নিম্নাঞ্চলের বেশকিছু এলাকা প্লাবিত হয়েছে। বৃষ্টি অব্যাহত থাকলে বন্যার আশংকা রয়েছে।

সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক সাবিরুল ইসলাম জানান, এখনো বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়নি। বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে তা মোকাবেলা করার জন্য জেলা প্রশাসন প্রস্তুত।