গর্ভধারণ রোধে আসছে বিশেষ স্মার্টফোন অ্যাপ

অপরাধ সংবাদ ডেস্ক | শনিবার, আগস্ট ১১, ২০১৮
গর্ভধারণ রোধে আসছে বিশেষ স্মার্টফোন অ্যাপ
গর্ভধারণ রোধে রয়েছে বিভিন্ন জন্মনিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা। কিন্তু এক্ষেত্রে স্মার্টফোন অ্যাপের ব্যবহার একেবারেই নতুন। যুক্তরাষ্ট্রের ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ) সম্প্রতি এমনই একটি অ্যাপের অনুমোদন দিয়েছে। কিন্তু এই অ্যাপ কি নির্ভরযোগ্য?

‘ন্যাচারাল সাইকেলস’ নামের এই অ্যাপটি কীভাবে কাজ করে? মূলত এটি হিসেব করে দেখে মাসের কোন দিনগুলোতে ব্যবহারকারীর গর্ভধারণের সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি এবং সে দিনগুলোতে যৌনতা থেকে বিরত থাকতে বলে অথবা জন্মনিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি (যেমন কনডম) ব্যবহার করতে বলে।

এই অ্যাপ ব্যবহারের জন্য প্রতিদিন সকালে নারীর শরীরের তাপমাত্রা মাপতে হয় একটি থার্মোমিটার দিয়ে এবং এই তাপমাত্রা ওই অ্যাপে লিখতে হয়। ওভুলেশন বা ডিম্বপাতের সময়ে নারীর শরীরের তাপমাত্রা কিছুটা বৃদ্ধি পায়। সেটাই ওই অ্যাপ ধরতে পারে।  এই তথ্য এবং নারীর মেনস্ট্রুয়াল সাইকেলের কিছু তথ্য ব্যবহার করে অ্যাপটি বুঝতে পারে সেদিন ব্যবহারকারীর শরীর উর্বর কী না।  সাধারণত প্রতি মাসে মাত্র চার থেকে পাঁচ দিন একজন নারীর শরীর উর্বর থাকে।

তবে জন্মনিয়ন্ত্রণের কোনো একটি পদ্ধতিই আদতে নিখুঁত নয়, জানিয়েছেন এফডিএর কর্মকর্তা ড. টেরি কর্নেলিসন।  তাই এই অ্যাপটি সঠিক নিয়ম মেনে ব্যবহার করলেও গর্ভধারণের সম্ভাবনা থাকতে পারে।

অ্যাপটির কার্যকারিতার বিষয়ে এফডিএর বাইরের বিশেষজ্ঞরা সন্দেহ প্রকাশ করেছেন।  মূলত এ নিয়ে আরও গবেষণা দরকার ছিল বলে তারা মনে করেন। 

ন্যাচারাল সাইকেলস অ্যাপটি জন্ম নিরোধক পিলের মতোই কার্যকরী, অর্থাৎ তা ব্যবহারের পরেও ৯ শতাংশ ক্ষেত্রে গর্ভধারণ ঘটতে পারে।  ইউরোপে ইতোমধ্যেই অনুমোদিত এই অ্যাপ। তবে যুক্তরাজ্য এবং সুইডেনে এই অ্যাপ নিয়ে তদন্ত চলছে। কারণ সুইডেনে ৩৭ নারী অভিযোগ করেন, এই অ্যাপ ব্যবহারের পরেও গর্ভবতী হয়ে পড়েছেন তারা।  

ন্যাচারাল সাইকেলস অ্যাপটি ২০ থেকে ৪০ বছর বয়সী নারীদের ব্যবহার করতে বলা হয়। যারা হরমোনাল বার্থ কন্ট্রোল ব্যবহার করছেন, বা যারা গর্ভধারণ করলে গুরুতর স্বাস্থ্যঝুঁকি দেখা দিতে পারে, তাদের এই অ্যাপ ব্যবহার করা নিষেধ।

সূত্র: লাইভ সায়েন্স