নেত্রকোনায় জামাই-শশুরকে কুপিয়ে জখম

অপরাধ সংবাদ ডেস্ক | রবিবার, আগস্ট ১২, ২০১৮
নেত্রকোনায় জামাই-শশুরকে কুপিয়ে জখম
কানের সমস্যার ওষুধ খাওয়ানোকে কেন্দ্রকরে দ্বন্দ্বের জেরে নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলায় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ (৫০)কে ধারালো দা দিয়ে কুপিয়ে আহত করেছে নিজ মেয়ের জামাই শামীম (৩৫)। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় কেন্দুয়া উপজেলার গড়াডোবা ইউনিয়নের বাঁশাটি বাজারে এ ঘটনা ঘটে।গুরুতর আহত আব্দুর রশিদকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পাষণ্ড ওই মেয়ে জামাইকে আটক করে পুলিশের কাছে সোর্পদ করেছে এলাকাবাসী।
 
পুলিশ ও এলাকাবাসীর বরাত দিয়ে জানায়, উপজেলার গড়াডোবা ইউনিয়নের বাঁশাটি গ্রামের আব্দুল গফুরের ছেলে শামীম দীর্ঘদিন ধরে কানের সমস্যায় ভোগছিলেন। এজন্য তিনি ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাও নিয়েছেন। তার স্ত্রী রিপা আক্তার অন্ত:স্বত্তা হওয়ায় শশুর বাড়ি একই ইউনিয়নের রামপুর গ্রামে অবস্থান করছিল।

মাসখানেক আগে কানের সমস্যা নিয়েই শামীম শশুর বাড়িতে স্ত্রীর কাছে যায়। সেখানে দুইদিন অবস্থান করাকালে তাকে তার অজান্তেকানের সমস্যা সমাধানের জন্য ঔষধ খাওয়ানো হয়। এতে তার সমস্যা আরো বেড়ে গেলে স্ত্রী ও শশুরের প্রতি চরম ক্ষুব্ধ হয় শামীম। এরই জের ধরে গত শুক্রবার সন্ধ্যায় মেয়ে জামাই শামীম শশুর আব্দুর রশিদকে বাঁশাটি বাজারে তার মনোহারী দোকানে ধারালো দা দিয়ে এলোপাতারী কুপিয়ে মারাত্মক আহত করে। পরে আহত আব্দুর রশিদকে আশংকাজনক অবস্থায় শুক্রবার রাতেই ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয় এবং মেয়ে জামাই শামীমকে আটক করে পুলিশের কাছে সোর্পদ করে এলাকাবাসী। এ বিষয়ে শনিবার কেন্দুয়া থানার ওসি ইমারত হোসেন গাজী জানান, শামীমকে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে। অভিযোগের প্রেক্ষিতে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।