ঘরমুখো মানুষের স্রোত কমলাপুরে

নিজস্ব প্রতিবেদক, | শনিবার, আগস্ট ১৮, ২০১৮
ঘরমুখো মানুষের স্রোত কমলাপুরে
স্বজনদের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে আগেই অনেকটা যুদ্ধ করে অগ্রিম টিকিট নিয়েছিলেন নগরবাসী। এবার তারা রাজধানী ছাড়ছেন। ঈদযাত্রার দ্বিতীয় দিন শনিবার কমলাপুরে ঘরমুখো যাত্রীদের উপচেপড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। তবে আজও কিছু ট্রেনের সময় বিপর্যয় হয়েছে। এতে কিছুটা ভোগান্তিতে পড়েছেন ওই সময় ট্রেনের যাত্রীরা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, সকাল থেকেই অধিকাংশ ট্রেন সময়মতো কমলাপুর ছেড়ে যাচ্ছে। প্রতিটি ট্রেনই ছিল কানায় কানায় পরিপূর্ণ। সকাল সাড়ে নয়টায় এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত তিনটি ট্রেন বিলম্বে স্টেশন ছেড়েছে। এই সময়ের মধ্যে ১১টি ট্রেন ছেড়ে গেছে সময়মতো।

যেসব ট্রেন ঢাকায় ঢুকতে দেরি করছে যেগুলো সেগুলো যেতে দেরি করছে বলে রেল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

ঈদযাত্রার অন্যান্য ভোগান্তির সঙ্গে ট্রেনের এই বিলম্বে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন যাত্রীরা। রংপুর এক্সপ্রেসের যাত্রী রেজাউল ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘ট্রেনের টিকিট কাটতেও ভোগান্তি পোহাতে হয়, আবার ট্রেনগুলো সঠিক সময়ে ছাড়ছেও না। এতে মানুষের ভোগান্তি আরও দ্বিগুণ হয়ে যাচ্ছে। সড়কে যানজটের ভোগান্তি অন্যদিকে ট্রেনেও দেখেন সময় মতো ছাড়ছে না, মানুষ যাবে কোথায়।’

একই ট্রেনের যাত্রী রফিকুল ঢাকাটাইমসকে বলেন, সড়কপথে যানজটের কথা মাথায় রেখে দীর্ঘ ১২ ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে টিকিট কেটেছি। ট্রেনে অতিরিক্ত ভিড়, অন্যদিকে প্রায় ট্রেন লেট করে ছেড়ে যাচ্ছে। আমাদের ট্রেন কখন ছাড়ে কে জানে। ট্রেনে এতো ভিড়ের কারণে নারীদের খুব সমস্যা তবুও নানা ভোগান্তি সত্ত্বেও প্রিয়জনদের সাথে ঈদ করতে শহর ছেড়ে গ্রামে ছুটছে সবাই।

ঈদের ট্রেনের অগ্রিম টিকিট অনুযায়ী আজ দ্বিতীয় দিনের মতো রাজধানী ছেড়ে যাচ্ছে মানুষ। গত ৯ আগস্ট দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে যারা টিকিট সংগ্রহ করতে পেরেছিলেন তারাই আজ ট্রেনে রাজধানী ছাড়ছেন। ধারাবাহিকভাবে ২১ আগস্ট পর্যন্ত ট্রেনের অগ্রিম টিকিট সংগ্রহকারী যাত্রীরা বাড়ি যাত্রা করবেন। তবে টিকিটের বাইরেও প্রচুর যাত্রী থাকলেও তাদের স্টেশনের ভেতরে ঢুকতে দেয়া হচ্ছে না।

স্টেশনের কর্মকর্তারা বলছেন, যেসব ট্রেন স্টেশন ছেড়ে যেতে বিলম্ব হয়েছে সে ট্রেনগুলো স্টেশনেই দেরিতে এসে পৌঁছেছে। সাময়িক এই বিলম্বের জন্য যাত্রীদের কিছুটা অসুবিধা হয়েছে। তবে ট্রেনযাত্রায় যাত্রীদের যেন কোনো সমস্যা না হয় এ ব্যাপারে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে বলে জানান তারা।