আজ থেকে শুরু হচ্ছে পবিত্র হজ

অপরাধ সংবাদ ডেস্ক | সোমবার, আগস্ট ২০, ২০১৮
আজ থেকে শুরু হচ্ছে পবিত্র হজ

আজ সোমবার থেকে শুরু হচ্ছে পবিত্র হজ। লাব্বাইক, আল্লাহুম্মা লাব্বাইক, লা শারিকা লাকা লাব্বাইক, ইন্নাল হামদা ওয়াননি’মাতা লাকা ওয়ালমুল্ক।’ অর্থাৎ—‘আমি হাজির, হে আল্ল্লাহ আমি হাজির, তোমার কোনো শরিক নেই, সব প্রশংসা ও নিয়ামত শুধু তোমারই, সব সাম্রাজ্যও তোমার।’ এই ধ্বনিতে আজ মুখরিত হবে আরাফাতের ময়দান। 

তীব্র গরম উপেক্ষা করে দুনিয়ার নানা প্রান্ত থেকে এবার ২০ লাখেরও অধিক নারী-পুরুষ হজ পালনার্থী মক্কায় পৌঁছেছেন । সৌদি আরবের ক্যালেন্ডার অনুযায়ী আজ ৯ জিলহজ। আরবীতে যাকে বলা হয়, ইয়াউমুল হজ বা ইয়াউমুল আরাফাহ। নবী করিম (সা.) বলেছেন, আল্লাহর দিবসসমূহের ভেতর সর্বোৎকৃষ্ট হচ্ছে জিলহজের ১০টি দিন। তন্মধ্যে উত্তম ৯ তারিখ হজের দিন। এ দিন আমি মুহাম্মদসহ অন্য নবীগণ যে দোয়া পড়েছি তা হলো- “লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াহদাহু লা শারীকা লাহু।”

গত দু’দিন ধরে দুনিয়ার সব হজযাত্রীকে মিনায় সমবেত করা হয়। মিনায় ৬ ওয়াক্ত নামাজ পড়া সুন্নত। হজ পর্বের এটাই শুরু। হজের অন্যতম ফরজ হচ্ছে আরাফাতের মাঠে অবস্থান। এটিই হজ। হজের অন্য দুইটি ফরজ ১. ইহরাম বাধা বা নিয়্যত করা, ২. মূল তওয়াফ করা। আজ হাজীরা দুপুর থেকে সূর্য অস্ত পর্যন্ত আবশ্যিকভাবে আরাফাতের ময়দানে অবস্থান করবেন। এখানেই হজের খুতবা দেয়া হবে। এবার খুতবা দেবেন মদীনার মসজিদের অন্যতম ইমাম শায়খ আহমদ আলুশ শায়খ।

হাদীস শরীফে এসেছে, জিলহজের ৯ তারিখ রোজা রাখা গত ও আগামী বছরের গুনাহর কাফফারা স্বরূপ। তবে এ রোজা বিশ্বমুসলিমের জন্য নফল। হজ পালনরতদের জন্য নয়। আগামীকাল মঙ্গলবার মুজদালিফায় ফজরের নামাজ আদায় করে হাজিরা মিনায় যাবেন। মিনায় বড় শয়তানকে সাতটি পাথর মারার পর পশু কোরবানি দিয়ে পুরুষরা মাথা মুণ্ডন করে গোসল করবেন। এরপর ইহরাম বদল করে স্বাভাবিক পোশাক পরে মিনা থেকে মক্কায় গিয়ে পবিত্র কাবা শরিফ সাতবার তাওয়াফ করবেন। কাবার সামনের দুই পাহাড় সাফা ও মারওয়ায় সাতবার সাঈ (দৌড়াবেন) করবেন। সেখান থেকে তারা আবার মিনায় তাঁবুতে ফিরে যাবেন। এরপর বুধ ও বৃহস্পতিবার জামারায় নির্দিষ্ট সময়ে যথাক্রমে মধ্যম শয়তান ও ছোট শয়তানকে উদ্দেশ করে সাতটি করে পাথর নিক্ষেপ করবেন।

মিনার কাজ শেষে আবার মক্কায় বিদায়ি তাওয়াফ করার পর নিজ নিজ দেশে ফিরবেন। যারা হজের আগে মদিনায় যাননি, তারা মদিনায় যাবেন। এভাবে সম্পন্ন হবে হজের পুরো আনুষ্ঠানিকতা। ইসলাম ধর্মের পাঁচটি স্তম্ভের মধ্যে একটি হচ্ছে হজ পালন। জীবনে অন্তত একবার হজ পালন করতে হয়।