বলাশপুরে সোনিয়া হত্যাকান্ডের দায় স্বিকার করলেন ঘাতক স্বামী শওকত

স্টাফ রিপোর্টার | রবিবার, আগস্ট ২৬, ২০১৮
বলাশপুরে সোনিয়া হত্যাকান্ডের দায় স্বিকার করলেন ঘাতক স্বামী শওকত

ময়মনসিংহ শহরের বলাশপুরে গৃহবধূ সোনিয়া আক্তার হত্যাকান্ডের ঘাতক স্বামী শওকতকে কোতোয়ালী মডেল থানা পুলিশ গ্রেফতার করেছে। ঘাতক স্বামী হত্যাকান্ডের দায় স্বিকার করে রবিবার আদালতে জবানবন্দি প্রদান করেছে। গত ২৭ জুলাই শহরের বলাশপুরে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করে বাড়ি পাশেই মাটি খুড়ে বালুচাপা দিয়ে রাখা হয় স্ত্রী সোনিয়া আক্তারকে। প্রাপ্ত তথ্যে জানা গেছে, শহরের বলাশপুর এলাকার বাসিন্দা শওকত আলী ড্রাইভারের স্ত্রী সোনিয়া আক্তারের পরকিয়া রয়েছে এ ধরণের অভিযোগে স্বামী স্ত্রীর মাঝে বিরোধ চলে আসছিল।

গত ২৭ জুলাই শওকত আলী ড্রাইভার রাতে বাড়ি ফিরলে তার স্ত্রীকে অশালীন অবস্থাায় দেখতে পায়। এ সময় পরকিয়া প্রেমিক তাকে ধাক্কা দিয়ে ঘর থেকে বেরিয়ে যান। দিশেহারা হয়ে পড়ে স্ত্রী সোনিয়া আক্তার তার স্বামী শওকত আলীকে হত্যা করতে তার গলায় বটি দা ধরে। কোনক্রমে শওকত আলী তার স্ত্রীর কাছ থেকে দা সরিয়ে ফেলে। একপর্যায়ে স্ত্রী সোনিয়া আক্তারকে মাটিতে ফেলে গলায় চেপে ধরে স্বামী শওকত। কিছুক্ষণ পর সোনিয়া নড়াচড়া না করলে দেখতে পায় সে মারা গেছে। পরে তার লাশ শওকত নিজেই টেনে নিয়ে বাড়ির পাশেই গর্ত খুড়ে মাটিচাপা দিয়ে রাখে। এর পর থেকে সে এলাকা ছেড়ে অন্যত্র পালিয়ে বেড়াচ্ছে। এদিকে স্থাানীয়দের সহায়তায় ঘটনার ১০দিন পর মাটির নীচ থেকে পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় কোতোয়ালী মডেল থানায় মামলা নং ১৬(০৮)১৮ রুজু হয়েছে। লাশের পচন ধরায় এবং মুখমন্ডল দেখে সনাক্ত করা সম্ভব না হওয়ায় অজ্ঞাত পরিচয়ে নিহতের লাশ দাফন করা হয়।

কোতোয়ালী মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (কমিউনিটি পুলিশিং ও ইন্টেলিজেন্ট) মুশফিকুর রহমান জানান, এ হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটনসহ হত্যার সাথে জড়িতদের গ্রেফতারে একাধিক সোর্সের মাধ্যমে তিনি বিভিন্নস্থাানে চেষ্ঠা চালিয়ে আসছেন। গত শনিবার শহরের রহমতপুর এলাকা থেকে ঘাতক স্বামী শওকত আলী ড্রাইভারকে গ্রেফতার করেন পুলিশ পরিদর্শক মুশফিকুর রহমান। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ঘাতক স্বামী পুলিশের কাছে হত্যাকান্ডের বিবরণ দিয়ে ঘটনার স্বিকার করেন। পরে তাকে রবিবার আদালতে প্রেরণ করা হলে শওকত তার স্ত্রী সোনিয়া আক্তারকে হত্যার নির্মম বর্ণনা দিয়ে ঘটনার দায় স্বিকার করেছেন।