পূর্বধলার তুচ্ছ ঘটনার সংঘর্ষে নারীসহ আহত-৬

মোঃ এমদাদুল ইসলাম | বৃহস্পতিবার, আগস্ট ৩০, ২০১৮
পূর্বধলার তুচ্ছ ঘটনার সংঘর্ষে নারীসহ আহত-৬

নেত্রকোনার পূর্বধলার জারিয়া বাজারস্থ বসত বাড়ি ও মুদির দোকানে গত ২৬ আগস্ট সন্ধ্যায় একটি মুরগি মেরে ফেলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে নারী সহ ৬ জন গুরুতর আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ১৫ জনকে আসামী করে মোঃ শহিদ মিয়া (২৮) বাদী হয়ে ২৮ আগস্ট পূর্বধলা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়।

অভিযোগে জানা যায়, গত ২৬ আগস্ট সন্ধ্যায় উপজেলার জারিয়া ইউনিয়নের শহিদ মিয়ার বসত বাড়িতে হ্যাপি ও মিলি দু’জনের মধ্যে মুরগি মেরে ফেলার কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে দু’পক্ষে মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। আহতারা হলেন, আব্দুল মজিদের স্ত্রী সুফিয়া বেগম (৫৫), ফারুক মিয়ার স্ত্রী তহুরা বেগম (৩৩), আব্দুল মজিদের ছেলে ফারুক মিয়া (৩৫), আব্দুস ছোবানের স্ত্রী রীনা আক্তার (২৫), মেয়ে সোহানা বেগম (১৫), মাছুম মিয়ার স্ত্রী হ্যাপি আক্তার (২২)। তারা পূর্বধলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

অভিযোগে আরো জানা যায়, মৃত আজম আলীর ছেলে নুরুল ইসলাম (৫০) এর নেতৃত্বে মৃত আঃ রশিদের ছেলে মোঃ মাসুম মিয়া (২৮), শামছু মিয়ার ছেলে ফরজুল ইসলাম (৩০), ভুট্টু মিয়া (৪২), মঞ্জুল (৪৫), মঞ্জুলের ছেলে বাবু (২০), নাহিদ (২৫), মৃত নবী হোসেনের ছেলে সুরুজ মিয়া (৪৫), সুরুজ মিয়া ছেলে শফিকুল ইসলাম (২০), মৃত ফেছু ব্যাপারীর ছেলে শামছু মিয়া (৭০), মাসুম মিয়ার স্ত্রী হ্যাপি আক্তার (২২), মাবি মিয়ার ছেলে ফরহাদ (২৮), ইমাম আলীর ছেলে বাবু (৩০), মৃত আমির আলীর ছেলে স্বপন মিয়া (৩০), নাটেরকোনা গ্রামের মৃত সিরাজ মিয়ার স্ত্রী নিলুফা বেগম (৪০) তারা দা, রড ও লাঠিসোঠা নিয়ে হামলা চালায়।

পূর্বধলা থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ মিজানুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, গত ২৮ আগস্ট ১৪৩/৪৪৭/৪৪৮/৩২৪/৫২৪/৩২৫/৩২৬/৩০৭/৩৮০/৩৫৪/৪২৭/৫০৬/১১৪ ধারায় মামলা রজু করা হয়েছে। পূর্বধলা থানার মামলা নং ২৫।