সন্তান নিয়ে সংসদে প্রবেশের অনুমতি পাননি জার্মান সাংসদ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, | শনিবার, সেপ্টেম্বর ১, ২০১৮
সন্তান নিয়ে সংসদে প্রবেশের অনুমতি পাননি জার্মান সাংসদ
ছয় সপ্তাহ বয়সি সন্তানকে নিয়ে আসায় এক নারী সাংসদকে সংসদ অধিবেশনে যোগ দিতে দেয়নি জার্মানির টুরিঙ্গিয়া রাজ্যের পার্লামেন্ট কর্তৃপক্ষ৷ এর ফলে শিশু সন্তানসহ সংসদ অধিবেশন যোগ দেয়ার বিষয়টি আবারো আলোচনায় এসেছে৷

গত বুধবার টুরিঙ্গিয়া রাজ্যের নারী সাংসদ মেডেলাইনে হাইনফ্লিং তার ছয় সপ্তাহ বয়সি সন্তানসহ উত্থাপিত একটি বিষয়ে ভোট প্রদান করতে সংসদে এসেছিলেন৷ কিন্তু সংসদ সভাপতি ক্রিস্চিয়ান কারিউস সাংসদ হাইনফ্লিং'কে জানিয়ে দেন যে, সংসদ অধিবেশনে শিশুদের নিয়ে প্রবেশের অনুমতি নেই৷ এসময় ৩০ মিনিটের জন্য সংসদের কার্যক্রম মুলতবি করা হয়৷ খবর ডয়চে ভেলের।

পরে অধিবেশন শুরু হওয়ার আগে সংসদের উপদেষ্টা কমিটির সদস্যরা হাইনফ্লিংকে জানান যে, তিনি তার সন্তানকে নিয়ে সংসদের প্ল্যানারি চেম্বারে প্রবেশ করতে পারবেন না৷ নিজের সন্তানসহ অধিবেশনে প্রবেশ করতে না দেয়ার বিষয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে হাইনফ্লিং বলেন, 'এ ঘটনার পর আমার  নিজেকে একজন দ্বিতীয় শ্রেণির মর্যাদাধারী সাংসদ বলে  মনে হচ্ছে'৷

বৃহস্পতিবার সাংসদ হাইনফ্লিং তার সন্তানসহই সংসদে এসেছেন৷ তবে শিশুসহ সংসদে প্রবেশ করেননি৷ এ সময় তিনি তার মাকে সঙ্গে নিয়ে এসেছিলেন, যিনি সংসদ ভবনের অন্য একটি কক্ষে শিশুটির দেখাশোনা করেছেন৷

সেখানকার আইন কী বলছে?

টুরিঙ্গিয়া পার্লামেন্টের 'পরিচালনা বিষয়ক বিধি' শিশুসন্তানসহ সংসদের প্লেনারি সেশনে যোগদানের বিষয়টি কঠোরভাবে নিষিদ্ধ করেনি৷ তবে আইন অনুযায়ী, কাউকে সাথে নিয়ে সংসদ অধিবেশনে যোগ দিতে চাইলে সংসদ সভাপতির অনুমতি নেয়া প্রয়োজন৷ বুধবার সন্তানসহ সংসদের প্লেনারি সেশনে যোগদানের অনুমতি চেয়েছিলেন হাইনফ্লিং৷ কিন্তু সংসদ সভাপতি ক্রিস্চিয়ান কারিউস অনুমতি দেননি৷

সংসদে আলোচনা

এদিকে সন্তানসহ সংসদে প্রবেশের বিষয়ে সংসদের 'পরিচালনা বিষয়ক' বিদ্যমান বিধির পরিবর্তন আনা নিয়ে আলোচনার প্রস্তাব দিয়েছিলেন সংসদ সভাপতি ক্রিস্চিয়ান কারিউস৷ কিন্তু গ্রিন পার্টির সাংসদ হাইনফ্লিং জানান, তিনি এবং তার দল এই মুহুর্তে সংসদের বিদ্যমান বিধির কোনো পরিবর্তন চান না। কেননা, এটি টুরিঙ্গিয়া সংসদের অংশগ্রহণকারী বিরোধীদলগুলোর দাবির সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ হবে না৷ তবে তিনি বলেন যে, তার দল এ বিষয়টি নিয়ে রাজ্যের সাংবিধানিক আদালতে উপস্থাপন করতে চায়৷ তিনি বলেন, 'প্রায় নয় ঘণ্টা ধরে চলা অধিবেশনে কেউই তার সন্তানকে নিয়ে আসতে চায় না৷ কিন্তু আমি নিয়ে এসেছিলাম, কারণ, আমি সংসদে যোগদান করতে চেয়েছিলাম'৷

ক্যানাডা, অস্ট্রেলিয়াসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশেই নারী সাংসদরা সন্তানকে সংসদে নিয়ে আসার জন্য এমনকি সংসদে অধিবেশন চলাকালে সন্তানকে বুকের দুধ খাওয়ানোর সাহস দেখানোর জন্য প্রশংসিত হচ্ছেন৷ কিন্তু জার্মানিতে কর্মজীবি মায়েদের জন্য সন্তানসহ কর্মক্ষেত্রে যোগদান করতে পারার বিষয়টি এখনো স্বাভাবিকভাবে দেখা হচ্ছে না।

সন্তানসহ সংসদে যোগদান করতে না দেয়ার বিষয়ে টুরিঙ্গিয়া সংসদ সভাপতির এ আচরণকে 'অসম্মানজনক' মনে করেন কাউন্সিল ফর জার্মান উয়োমেন'স অর্গানাইজেশনের মুখপাত্র ওলরিকে হেলভ্যারট৷ ওলরিকে বলেন, 'কর্মজীবী পিতা-মাতাদের কর্মক্ষেত্রে শিশু সন্তানদের সঙ্গে রাখতে পারার বিষয়ে আমাদের আরো যত্নবান হওয়া উচিত৷ আমাদের বাস্তবতাসম্মত শর্ত আরোপ করতে হবে৷'

সংসদের প্লেনারি সেশনে যোগদান, ভোটপ্রদান ইত্যাদি বাধ্যবাধকতার জন্য জার্মানির জাতীয় সংসদসহ অন্যান্য আঞ্চলিক সংসদের সদস্যরা লম্বা সময়ের জন্য ছুটি উপভোগ করার সুযোগ পান না৷ মাতৃত্বকালীন সময়ে ছুটি না পাওয়ার কারণে অনেক সাংসদকেই ঝামেলায় পড়তে হয়৷