‘জন্মদিনে লাশ হয়ে ফিরলেন পুলিশ কর্মকর্তা’

অপরাধ সংবাদ ডেস্ক | মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ৪, ২০১৮
‘জন্মদিনে লাশ হয়ে ফিরলেন পুলিশ কর্মকর্তা’

ঢাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) উত্তম সরকারের জন্মদিন ছিল আজ (সোমবার)। জন্মদিনে নিজ বাড়িতে ফিরলেন লাশ হয়ে। রাতেই রাতেই সম্পন্ন হয় তার শেষকৃত্য। 

নিহতের স্বজনরা জানায়, সোমবার ছিলো উত্তম কুমার সরকারের জন্মদিন। ছেলের সাথে ঢাকায় থাকতেন মা কামনা রানী সরকার। ঈদের ছুটিতে কালিহাতী পৌরসভার পশ্চিম বেতডোবা গ্রামের বাড়িতে বাড়াটিয়ারা বাড়ি যাওয়ায় খালি থাকবে বলে এখানে এসেছিলেন নিহতের মা। 

বিকালে ছেলের জন্য পায়েশ রান্না করে নিয়ে যাওয়ার কথা তাঁর। বিকালের ফোনে থেমে যায় কামনা রানী সরকারের ছেলের কাছে যাওয়া। পায়েশ খাওয়ানো হলো না মা কামনা রানী সরকারের। শোকে বিছানায় শুয়ে ছিলেন নিহতের মা। কান্নাজড়িত কন্ঠে কথা গুলো জানাচ্ছিলেন নিহতের বৌদি।

নিহত এসআই উত্তমের বাড়ি টাঙ্গাইলের কালিহাতী পৌরসভার পশ্চিম বেতডোবা কর্মকারপাড়ায়। সোমবার সন্ধ্যার পর মরদেহ বাড়িতে এলে সেখানে নেমে আসে শোকের ছায়া। শোকে স্তব্ধ হয়ে যায় পুরো এলাকা। স্ত্রী তমারানী ও মা কামনা সরকারসহ স্বজনদের আহাজারিতে ভারী হয়ে ওঠে গোটাপাড়া।

এদিকে পাশের রুমে মেয়ে উপমাকে কোলে নিয়ে বারবার মূর্ছা যাচ্ছিলেন তমা সরকার। বলেন, আমি কাকে নিয়ে বাঁচব, মেয়ের কী হবে? গতকাল একসাথে (২ সেপ্টেম্বর) ওর জন্য কেক, গিফট কিনতে যাওয়ার কথা ছিল, সবসময় ওর সব পছন্দের খাবারগুলো রান্না করে দিতাম, এখন কাকে রান্না করে খাওয়াব?

স্বামী হত্যার বিচারও চান উত্তম কুমার সরকারের স্ত্রী তমা সরকার।

১৯৮৫ সালে জন্মগ্রহণ করেন উত্তম। কালিহাতীর আরএস পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি এবং কালিহাতী কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন। এরপর ভারতের বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মার্কেটিংয়ে বিবিএ এবং ঢাকার ইবাইস বিশ্ববিদ্যালয় থেকে একই বিষয়ে এমবিএ পাস করেন। ২০১২ সালে পুলিশের এসআই পদে যোগদান করেন। যোগদানের পর থেকে তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানা, মোহাম্মদপুর এবং সর্বশেষ রূপনগর থানায় কর্মরত ছিলেন।