বিশ্ববরেণ্য চিত্রশিল্পী এস এম সুলতানের জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে চিত্রা নদীতে নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

উজ্জ্বল রায়, নড়াইল জেলা প্রতিনিধি | শনিবার, সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৮
বিশ্ববরেণ্য চিত্রশিল্পী এস এম সুলতানের জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে চিত্রা নদীতে নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

নড়াইলে বিশ্ববরেণ্য চিত্রশিল্পী এস এম সুলতানের  জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। চিত্রশিল্পী এসএম সুলতান ৯৪তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে এ নৌকাবাইচের আয়োজন করা হয়। গতকাল শনিবার (৮ সেপ্টেম্বর) বিকেলে নড়াইলের ফেরিঘাট এলাকা থেকে এসএম সুলতান সেতু পর্যন্ত প্রায় চার কিলোমিটার অংশ জুড়ে নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বীরেন শিকদার।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন বিশ্বাস, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, সুলতান ফাউন্ডেশনের সদস্য সচিব আশিকুর রহমান মিকু প্রমুখ। এদিকে নৌকাবাইচকে কেন্দ্র করে চিত্রা নদীর দু’পাড়ে সৃষ্টি হয় আনন্দ-উৎসব। নৌকাবাইচে নারীদের চারটি এবং পুরুষদের ১৮টি নৌকা অংশগ্রহণ করে।

প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ীদের পুরস্কার দেয়া হয়। শনিবার বিকেলে নড়াইলের চিত্রা নদীতে নৌকাবাইচ শুরু হলেও সকাল থেকেই বিভিন্ন পেশার মানুষ নদীর দু’পাড়ে ভিড় করেন। নৌকাবাইচ উপলক্ষে চিত্রা নদীর পাড়ে, বাঁধাঘাটে এবং বিভিন্ন স্থানে মিষ্টিসহ বিভিন্ন পণ্যের পসরা বসেছিল। সুষ্ঠু-সুন্দর ভাবে প্রতিযোগিতা শেষ করতে পেরে খুশি আয়োজকরা। গণমাধ্যমকর্মীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ফরহাদ খান নড়াইল, নড়াইল জেলা অনলাইন মিডিয়া ক্লাবের সভাপতি উজ্জ্বল রায়, সাধারণ সম্পাদক মোঃ হিমেল মোল্যা, ক্লাবের সকল সদস্যবৃন্দসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষজন।

এদিকে, নড়াইলের সুলতান মঞ্চ চত্বরে চারদিনব্যাপী ‘সুলতান উৎসব’ গতকাল (শনিবার) রাতে শেষ হয়েছে। উৎসবে চিত্রপ্রদর্শনী, শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতাসহ আলোচনা সভা এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এস এম সুলতান শিশু চারু ও কারুকলা ফাউন্ডেশন এবং বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের আয়োজনে সুলতান উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। এসএম সুলতান ১৯২৪ সালের ১০ আগস্ট নড়াইলের মাছিমদিয়ায় বাবা মেছের আলী ও মা মাজু বিবির ঘরে জন্মগ্রহণ করেন। অসুস্থ অবস্থায় ১৯৯৪ সালের ১০ অক্টোবর যশোর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করার পর নড়াইলে তাকে চিরনিদ্রায় শায়িত করা হয়।