অমৃতসরে নিহত প্রত্যেকের সন্তান দত্তক নেবেন সিধু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | মঙ্গলবার, অক্টোবর ২৩, ২০১৮
অমৃতসরে নিহত প্রত্যেকের সন্তান দত্তক নেবেন সিধু

ভারতের অমৃতসরে ট্রেনে কাটা পড়ে কমপক্ষে ৬১ জন নিহত হয়েছেন। রেললাইনের ধারে রাবণ বধের অনুষ্ঠান দেখাকালে ভিড়ের মধ্যদিয়ে দিয়ে ট্রেন চলে যাওয়ায় শুক্রবার এ হতাহতের ঘটনা ঘটে।

ওই দিন রাতে দশেরার (বিজয়া দশমী) অনুষ্ঠানে পাঞ্জাব সরকারের মন্ত্রী ও প্রাক্তন তারকা ক্রিকেটার নভজ্যোত সিংহ সিধুর স্ত্রী নভজ্যোত কউর সিধুর উপস্থিত থাকা নিয়ে বিতর্ক বেড়ে গেছে। এ বিতর্কের মাঝেই কঠিন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। তিনি ঘোষণা দিয়েছেন, অমৃতসরের রেল দুর্ঘটনায় স্বজনহারা সব শিশুকে দত্তক নেবেন। মঙ্গলবার ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি এ খবর জানিয়েছে।

খবরে বলা হয়, সোমবার অমৃতসরের রেল দুর্ঘটনা নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে বৈঠক করেন পাঞ্জাবের কংগ্রেস প্রেসিডেন্ট সুনীল জাখার। ওই বৈঠকে সিধু বলেন, ‘আমার ব্যক্তিগত সামর্থ্য অনুযায়ী, আমি এবং আমার স্ত্রী ঘোষণা দিচ্ছি, আমরা অমৃতসরের দুর্ঘটনায় মৃতদের সন্তানদের সব দায়িত্ব নেব। তাদের শিক্ষিত করে প্রতিষ্ঠিত করার দায়িত্ব আমার। সেই সঙ্গে, এই দুর্ঘটনার ফলে যারা অক্ষম হয়ে গিয়েছেন এবং যেসব বয়স্করা সংসারের মূল উপার্জনকারীকে হারিয়েছেন, তাদেরও সমস্ত দায়িত্ব আমি নেব।’

পাঞ্জাব সরকার অমৃতসরে ট্রেন দুর্ঘটনার ঘটনায় সোমবার হতাহত ২১ পরিবারকে পাঁচ লাখ করে আর্থিক সহায়তা করে। প্রথম পর্যায়ের ক্ষতিপূরণ হিসেবে নিহত ২১ পরিবারকে পাঁচ লাখ করে মোট ১ কোটি ৫ লাখ টাকা আর্থিক সহায়তা দেয়া হয়।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী ব্রাহ্মণ মহিন্দ্র বলেছেন, আগামী দুই দিনের মধ্যে বাকি পরিবারকেও এ সহায়তা দেয়া হবে। তিনি বলেন, হতাহতের পরিবারের সদস্যরা এখন বিষণ্ণতায় ভুগছেন। তবে সরকার তাদের পাশে রয়েছে। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ মোতাবেক আমি নিজে ব্যক্তিগতভাবে অমৃতসরে উপস্থিত থেকে ত্রাণ বিতরণ ও পুনর্বাসনের কাজ মনিটরিং করছি।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার সন্ধ্যায় অমৃতসরের যোধা ফটকের কাছে রেললাইনের ধারে রাবণ বধের অনুষ্ঠান চলছিল। ভিড় এতটাই বেশি ছিল যে, রেললাইনের ওপরে উঠে অনুষ্ঠান দেখতে শুরু করেন অনেকে। এ সময় রাবণের কুশপুতুলে দাহের সময় বাজির শব্দে কোনো অন্য আওয়াজ শোনা যাচ্ছিল না। এ কারণে ট্রেনের হুইসেল কেউ শুনতে পাননি। ফলে ট্রেনটি দাঁড়িয়ে থাকা মানুষের ওপর দিয়ে চলে যায়।

এতে শিশুসহ অন্তত ৬১ জনের মৃত্যু হয়। আহত হন অন্তত ৭৪ জন। এ অনুষ্ঠানে নভজ্যোত সিংহ সিধুর স্ত্রী নভজ্যোত কউর সিধু প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।