ময়মনসিংহের এসপি মোঃ শাহ্ আবিদ হোসেন কুড়িয়ে নিচ্ছেন মানুষের আস্থা ও ভালবাসা

খায়রুল আলম রফিক,ময়মনসিংহ | রবিবার, ফেব্রুয়ারী ২৪, ২০১৯
ময়মনসিংহের এসপি মোঃ শাহ্ আবিদ হোসেন কুড়িয়ে নিচ্ছেন মানুষের আস্থা ও ভালবাসা

ময়মনসিংহে সুযোগ্য পুলিশ সুপার (এসপি) মোঃ শাহ্ আবিদ হোসেন, বিপিএম (বার) কুড়িয়ে নিচ্ছেন মানুষের আস্থা ও ভালবাসা । ইতিপূর্বে তিনি কুমিল্লায় দায়িত্বপালনকালে দেশের সেরা পুলিশ সুপার (এসপি) হিসেবে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড সম্মাননা পুরস্কার ও সনদ লাভ করেন । এই এসপির সরাসরি তত্ত্বাবধানে পুলিশের ট্রেইনি রিক্রুট কন্সটেবল নিয়োগে স্বচ্ছতা নিশ্চিতকরণে দেশে সর্বপ্রথম সফটওয়্যার প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়।

কুমিল্লা শহর এবং হাইওয়ের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে তার উদ্যোগে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করে অপরাধী শনাক্ত ও অপরাধ প্রতিরোধে কার্যকর ভূমিকা রাখা হচ্ছে। নাগরিকদের সময়, অর্থ, ভোগান্তি লাঘব করতে অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেটের আবেদন প্রক্রিয়া চালুপাইলট প্রজেক্ট হিসেবে তার নেতৃত্বে কুমিল্লা জেলা পুলিশ প্রশংসনীয় সফলতা অর্জন করে। কুমিল্লা থেকে ময়মনসিংহে বদলী হয়ে এসে নিরাপদ ময়মনসিংহ গড়তে নিরলসভাবে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন ।

মোঃ শাহ্ আবিদ হোসেন একজন সৎ সাহসী, কর্মদক্ষতা ও যোগ্যতা সম্পূর্ণ পুলিশ সুপার একথা বলছেন, ময়মনসিংহের সচেতন জনগণ। ময়মনসিংহে পুলিশের আইনী সেবা মানুষের দৌড়গোড়ায় পৌঁছানোর মাধ্যমে ইতিবাচক আইনি সু-শাসন প্রতিষ্ঠার ইতিহাস গড়েছেন । ময়মনসিংহে যোগদানের পর তিনি সাংবাদিক, রাজনীতিবিদ, সরকারি কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় করেন। তিনি মাদক, জুয়া, সন্ত্রাস বন্ধ, 

রক্তপাত বিহীন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠান, আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রাখাসহ বেশ কয়েকটি চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা সফলতার সাথে সম্পাদন করেছেন । দৃঢ় প্রত্যয়ী, সাহসী, সুক্ষ ধীবুদ্ধি সম্পন্ন, বলিষ্ঠ নেতৃত্বের সাথে অল্প সময়ের মধ্যে তিনি সাংবাদিক, রাজনীতিবিদ, সুশিল সমাজ, ব্যবসায়ীসহ সাধারন জনগনের ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়েছেন।

তার যুগান্তকারী বিভিন্ন পদক্ষেপ তন্মধ্যে মাদক ব্যবসায়ীদের আতঙ্কের কারণ, সফলভাবে রক্তপাত বিহীন নির্বাচন অনুষ্ঠানে ব্যাপক প্রশংসিত হয়েছেন সাধারন জনগণের কাছে । ময়মনসিংহ বিভাগে তিনি শীর্ষ এসপি যিনি ওয়ারেন্ট তামিল, আসামি গ্রেপ্তার, মাদক সংশ্লিষ্টদেও গ্রেপ্তারে সক্রিয় । মাদক উদ্ধারে ব্যাপক সফলতা রয়েছে মোঃ শাহ আবিদ হোসেনের ।

ময়মনসিংহ জেলা পুলিশের কর্মকর্তারা জানান, এসপি স্যার মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স, মাদকসেবী, মাদক ব্যবসায়ী, ডিলার ও গডফাদারদের লিষ্ট করেছি। পলাতক আসামী ও ওয়ারেন্টভুক্ত আসামীদের গ্রেপ্তারে রয়েছে ব্যাপক গতি। ইভটিজিং প্রতিরোধে স্যারের নেতৃত্বে আমরা ব্যাপক ভূমিকা রাখছি। এ বিষয়ে বিভিন্নস্থানে সভা, প্রোগাম ও সেমিনার করছি।

তারা বলেন, মাননীয় পুলিশ সুপার মহোদয়ের বলিষ্ঠ নেতৃত্বের বিষয়ে বলে শেষ করা যাবে না। আমাদের বৈচিত্রময় কর্মজীবনে বিভিন্নস্থানে কাজ করেছি। তবে স্যারের এত সফলতা কোন পুলিশ সুপার অর্জন করেছেন বলে আমার মনে হয় না। পুলিশ সুপার মহোদয় যে কতগুলো যুগান্তকারী পদক্ষেপ নিয়েছেন তার বর্ননা করে শেষ করা যাবে না। তবে ওনার নেতৃত্বে সফল নির্বাচন, অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ, জুয়াড়ীদের গ্রেপ্তার, সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তার, মাদক সংশ্লিষ্টদের গ্রেপ্তার, ভূমিদুস্যদের লাগাম টেনে ধরা হয়েছে।

তিনি ময়মনসিংহে থাকলে ময়মনসিংহবাসী রাতের বেলায়ও ঘরের দরজা খুলে ঘুমাতে পারবেন। স্যারের সাথে চাকরির বিষয়ে আমরা বলতে চাই পুলিশ কর্মকর্তাদের মধ্যে আমাদের দেখা স্বাধীনতার স্বপক্ষের সবচেয়ে ক্ষমতাধর ব্যক্তি তিনি। আমরা সরকারের চাকরি করি পুলিশ সুপারকে খুশি করে। জেলার সকল থানার সকল কর্মকর্তা কর্মচারী স্যারের ভালোবাসায় সিক্ত।

জেলার কয়েকটি থানার অফিসার ইনচার্জগণ বলেন, জেলার ১১টি আসনে শান্তিপূর্ণ নির্বাচন হয়েছে। এত শান্তিপূর্ণ নির্বাচন ময়মনসিংহে ইতিপূর্বে কখনও হয়নি। আর কোন দিন হবেও না। কোথাও কোন একটা টু শব্দ হয় নাই। মাদক বিরোধী অভিযানগুলো ব্যাপক সাড়া পেয়েছে। মাননীয় পুলিশ সুপার মহোদয়ের নির্দেশে ও নেতৃত্বে মাদক বিরোধী অভিযান,

চাঁদাবাজি, অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ পুলিশের জন্য ব্যাপক সফলতা বলা চলে। আমার থানার সকল কর্মকর্তা কর্মচারীগন মাননীয় পুলিশ সুপার মহোদয়ের সার্বিক সহযোগীতা পাচ্ছি। ওনার দিক নির্দেশনায় মাদকের প্রতি জিরো টলারেন্স, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ, দখলবাজদের বিরুদ্ধে একেবারে জিরো টলারেন্স। সার্বিক দিক বিবেচনায় স্যারের নির্দেশনায় এ কাজগুলি সফলভাবে সম্পন্ন করতে পারছি।

উনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে আমরা কাজ করছি। স্যারের কাছে আমাদের চাওয়া হলো সব বিষয়ে দিক নির্দেশনা, তাৎক্ষনিক সহযোগীতা, কাজের নির্দেশ দিলে আমরা খুশি। ময়মনসিংহবাসীর বাসির মতে এসপি মোঃ শাহ আবিদ হোসেন দায়িত্ব পালন করছেন সাধারণ মানুষের মুখে হাসি ফুঁটিয়ে । কুড়িয়ে নিচ্ছেন মানুষের আস্থা ও ভালবাসা ।