নেত্রকোনায় অটোচালককে খুনের ঘটনায় গ্রেফতারকৃত দুই আসামীর আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

আব্দুর রহমান, নেত্রকোনা | মঙ্গলবার, জুলাই ৯, ২০১৯

নেত্রকোনায় অটোচালককে খুনের ঘটনায় গ্রেফতারকৃত
দুই আসামীর আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

নেত্রকোনায় ইজিবাইক চালক আব্দুস সোবহান (৫০)  খুনের ঘটনায় গ্রেপ্তার হওয়া মোঃ রাসেল মিয়া (২৮) ও মোঃ এমদাদ মিয়া (৩০) আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। গতকাল সোমবার বিকেলে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ শরিফুল হকের আদালতে এই স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

     স্থানীয় বাসিন্দা ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সদর উপজেলার চল্লিশা ইউনিয়নের চন্দ্রবতী খিলা গ্রামের আব্দুস সোবহানের মুঠোফোনে গত শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে একটি ফোন আসে। এরপর তিনি বাড়ি থেকে বের হয়ে আর বাড়ি ফিরে আসেননি। অনেক খোঁজাখুঁজির পর তার কোন সন্ধান পাওয়া যাচ্ছিল না। গত রবিবার বিকেলে স্থানীয়রা পাশের এলাকা উত্তর বিল সলঙ্গীর এ

কটি পরিত্যক্ত উঁচু স্থানে মাটি চাপা দেয়া অবস্থায় তাঁর লাশ দেখতে পায়। খবর পেয়ে ওই দিন সন্ধ্যার দিকে নেত্রকোনা মডেল থানা পুলিশ গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে। এ ঘটনায় ওই দিন রাতে সোবহানের দ্বিতীয় স্ত্রী শিউলী আক্তার বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা করেন। মামলার প্রেক্ষিতে পুলিশ ঘটনার প্রকৃত রহস্য উদ্ঘাটনে জোরে শুরে তদন্তে নামে। তদন্তকালে একই গ্রামের প্রতিবেশী রাসেল মিয়া ও

এমদাদ মিয়া নাম উঠে আসায় পুলিশ অভিযুক্ত দুই ব্যক্তিকে ওই দিন গভীর রাতে গ্রেফতার করে। প্রাথমিক জিঝ্হাসাবাদে তারা ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে। পরে তাঁদেরকে জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে হাজির করা হলে সেখানে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করে।
      নেত্রকোনা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ তাজুল ইসলাম বলেন,  ইজিবাইক চালক সোবহানের সঙ্গে তারই প্রতিবেশী এক ব্যাক্তির বিরোধ ছিল। ওই ব্যক্তিই রাসেল ও এমদাদকে দিয়ে সোবহানকে শ্বাসরোধ করে খুন করিয়েছেন। এর পর লাশ গুশ করার জন্য মাটি চাপা দেয়া হয়। তিনি আরো জানান, তদন্ত এবং গ্রেপ্তারের স্বার্থে এই মূহুর্তে প্রকৃত হত্যাকারীর নাম প্রকাশ করা সম্ভব নয়।