পাগলায় গৃহবধূর পরকীয়ায় ভাসুর খুন

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে গৃহবধূর পরকীয়ার জেরে তার ভাসুর খুন হয়েছেন। ঘটনাটি ঘটে মঙ্গলবার গফরগাঁওয়ে | বুধবার, আগস্ট ১৪, ২০১৯
পাগলায় গৃহবধূর পরকীয়ায় ভাসুর খুন
ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে গৃহবধূর পরকীয়ার জেরে তার ভাসুর খুন হয়েছেন। ঘটনাটি ঘটে মঙ্গলবার গফরগাঁওয়ের পাগলার টাঙ্গাব ইউনিয়নের দোবাসিয়া গ্রামে।

পুলিশ এ ঘটনায় প্রবাসী এখলাসের স্ত্রী মুক্তা বেগম ও তার প্রেমিক ওসমানকে গ্রেপ্তার করেছে।

পাগলা থানা পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার দুবাসিয়া গ্রামের মালয়েশিয়া প্রবাসী এখলাস মিয়ার স্ত্রী মুক্তার সঙ্গে প্রতিবেশী ওসমানের পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল। এদিকে এখলাস মালয়েশিয়া থাকা অবস্থায় এক বছর আগে তার স্ত্রী মুক্তা একটি ছেলে সন্তানের জন্ম দেন। মুক্তার পরকীয়া নিয়ে দুই পরিবারের মাঝে একাধিকবার সালিশি বৈঠক হয়। ঈদুল আজহার ছুটিতে মালয়েশিয়া থেকে এখলাস বাড়িতে আসেন। মঙ্গলবার সকালে আবারও বিচার সালিশে বসে দুই পরিবারের লোকজন। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে প্রবাসী এখলাসের বড় ভাই রফিকুল ইসলাম রুহিতের মাথায় লাঠি দিয়ে আঘাত করেন পরকীয়া প্রেমিক ওসমান। এতে ঘটনাস্থলেই রুহিত মারা যান। খবর পেয়ে পাগলা থানা পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

স্থানীয় টাঙ্গাব ইউপি চেয়ারম্যান মোফাজ্জল হোসেন সাগর বলেন, পরকীয়ার জের ধরেই এ হত্যাকাণ্ডটি ঘটেছে। তিনি জানান, এর আগে তিনি এ নিয়ে একাধিকবার সালিশ করেছেন। কিন্তু দুজনের পরকীয়া বন্ধ করতে পারেননি।

এ ব্যাপারে পাগলা থানার ওসি শাহিনুজ্জামান বলেন, ঘটনাটি দুই পরিবারের পূর্ব বিরোধের জের ধরে ঘটেছে। এ ঘটনায় ঘাতক ওসমান ও মুক্তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। নিহতের মেয়ে শাহানাজ বেগম বাদী হয়ে হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।