বাবা তুমি ১২৮ বছর বয়সে থানায় এসেছো !

খায়রুল আলম রফিক | শুক্রবার, আগস্ট ২৩, ২০১৯
বাবা তুমি ১২৮ বছর বয়সে থানায় এসেছো !

বাবা তুমি ১২৮ বছর বয়সে থানায় এসেছো অধিকার আদায়ের দাবীতে, তুমি বিচার পাবে মানবতার আদালতে.…..কথা দিলাম।
সোনারগাঁও থানাধীন চরভবনাথপুর গ্রামের বন্দর আলী, বয়স-১২৮ অদ্য ইং ২০/০৮/২০১৯ তারিখ সকাল ১১.৩০ ঘটিকার সময় থানার গেইটের সামনে দিয়ে গুটি গুটি পায়ে লাঠি ভর দিয়ে হেটে থানায় আমাদের অফিসারদের রুমে এসে কষ্ট ভেজা কন্ঠে আমাকে বললো, বাবা তুমি আমাকে বাচাঁও, তোমার নাম কি আজাদ দারোগা!

আমি বৃদ্ধ বাবার কথা শুনে হতভাগ। এমন একজন বৃদ্ধ বয়সের বাবা আমার কাছে এসেছে আইনি সহায়তা পাওয়ার আশায়, তাও আমার নাম মনে রেখে। তখন বৃদ্ধ বাবাটিকে পাশে বসালাম, তার মনের আবেগমাখা বেদনাদায়ক কথাগুলো শুনতে লাগলাম।

অশ্রু ভেজা চোঁখে সে বললো,আমার ছেলেরা এবং ছেলেদের বউরা আমাকে খাবার দাবার দেয় না এবং কোন প্রকার খোজ খবরও রাখেনা উল্টো আমাকে ওরা শারীরিক নির্যাতন করে। বৃদ্ধ বাবার কথাগুলো কষ্টে ভেজা কন্ঠে শুনে হৃদয়ে রক্তক্ষরণ শুরু হলো, আমার মাথাটা ঠিক রাখা কঠিন হয়ে পড়েলো। আমি বিষয়টি সোনারগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ মহোদয় কে জানাইলে স্যার দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন।

স্যারে নির্দেশক্রমেই আমি সংগীয় ফোর্সসহ বৃদ্ধ বাবা টি কে আমাদের পুলিশ ভ্যানে করে ঘটনাস্থলে নিয়ে উপস্থিত হয়ে আশ পাশের লোকজনদের ঘটনার বিষয় প্রকাশ্য ও গোপনে জিজ্ঞেসাবাদ করি। বৃদ্ধ বাবার অভিযোগের বিষয়ে সত্যতাও মিলে কিন্তু তার ছেলেরা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে আগেই পালাইয়া যায়।

বাড়ীতে তার ছেলেদের না পাওয়ায় তাদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান চলমান রয়েছে। যে কোন উপায় বা বিশেষ কায়দায় হোক তাদের গ্রেফতার করবোই। তারপর ওদের বুঝাবো বৃদ্ধ বাবাকে কষ্ট দেওয়ার যন্ত্রনা কি ?

তবে যদি তার ছেলেরা এবং ছেলেদের বউরা বৃদ্ধ বাবাটি বোঝাই মনে করে। তবে আমিই সেই বৃদ্ধ বাবাটি কে আমার জীবনের অমূল্য সম্পদ ভেবে তার সকল দায়িত্ব আমিই নিবো, যতদিন আল্লাহ এই বৃদ্ধ বাবাটি কে বাচিঁয়ে রাখেন।

একবার ভাবুনতো আমরা কতটা অমানুষ হলে এমন বৃদ্ধ বাবাকে কষ্ট দিতে পারি? তবে আমি তার ছেলে এবং ছেলেদের বউ কে এমন শিক্ষা দিবো, যাতে সোনারগায়ের কোন সন্তান ঐ বিচার দেখে তার বৃদ্ধ পিতা-মাতাকে তার মতো কষ্ট দিতে সাহস না পায়।