পুলিশ–জামায়াত সংঘর্ষ, নিহত ১

স্টাফ রিপোর্টার | মঙ্গলবার, এপ্রিল ৭, ২০১৫
পুলিশ–জামায়াত সংঘর্ষ, নিহত ১

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত যুদ্ধাপরাধী মোহাম্মদ কামারুজ্জামানের রায় পুনর্বিবেচনার আবেদন বাতিল হওয়ার পর নোয়াখালীতে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়েছে তার দল জামায়াতে ইসলামী ও ছাত্রশিবিরের কর্মীরা। সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে জেলা শহরের রওশনবাণী সিনেমা হলের সামনে এই সংঘর্ষের ঘটনায় অজ্ঞাতপরিচয় এক যুবক (২৫) নিহত হয়েছেন।

এছাড়া আরও একজন গুলিবিদ্ধ হয়েছে এবং একজনকে আটক করা হয়েছে বলে নোয়াখালীর পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইলিয়াস শরীফ অপরাধ সংবাদকে জানান। হতাহতদের পরিচয় জানতে চাইলে তিনি বলেন, তারা সবাই জামায়াত-শিবিরের মিছিলে ছিলেন।
পুলিশ সুপার জানান, সকালে রায় ঘোষণার পর জেলা শহরে জামায়াত-শিবিরের একটি ঝটিকা মিছিল বের হয়।

রওশনবাণী সিনেমা হলের সামনে পুলিশ মিছিলে বাধা দিলে মিছিলকারীরা হাতবোমা ও ঢিল ছোড়ে। এ সময় পুলিশ শটগানের গুলি ছুড়লে কয়েকজন আহত হয়। ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় দুইজনকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নেওয়ার পর চিকিৎসক একজনকে মৃত ঘোষণা করেন বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

তিনি জানান, রাকিব (২২) নামে আরেক যুবককে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তার বাড়ি জেলা শহরের মাইজদী বাজারের কাছে। সংঘর্ষের সময় রাসেল নামে আরেকজনকে আটক করা হয়েছে, যিনি বেগমগঞ্জের এখলাসপুরের নুরুল কাদেরের ছেলে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এর আগেও যুদ্ধাপরাধ মামলায় জামায়াতের শীর্ষ নেতাদের রায়ের পর দেশের বিভিন্ন স্থানে নাশকতা চালিয়েছে জামায়াত-শিবিরকর্মীরা।

২০১৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে ট্রাইব্যুনালে জামায়াতের নায়েবে আমির দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর ফাঁসির আদেশ হলে দলটির ঘাঁটি বলে পরিচিত এলাকাগুলোতে ব্যাপক সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে। সরকারি হিসেবে সে সময় পুলিশসহ নিহত হয় ৭০ জনেরও বেশি মানুষ।

অপরাধ সংবাদ/ম/স/উ/রুমি